ভ্যাকসিন নিতে অসমে ছুটছেন তুফানগঞ্জের বাসিন্দারা

271

বক্সিরহাট: পশ্চিমবঙ্গে ভ্যাকসিন না পেয়ে প্রতিবেশী অসমের শরণাপন্ন হল তুফানগঞ্জ ২ ব্লকের বাসিন্দারা। মঙ্গলবার থেকে অসম বাংলা সীমান্তের ছাগলিয়ায় কোভিড ভ্যাকসিনের বিশেষ শিবির শুরু করল অসম সরকার। সেই শিবিরে অসমের বাসিন্দা থেকে সীমান্ত সংলগ্ন তুফানগঞ্জ ২ ব্লকের বাসিন্দাদের ভিড় বেশি বলে অসম প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। প্রতিদিন প্রায় ২৫০ জনের ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। মঙ্গল-বুধবার ২ দিনে মহকুমার তুফানগঞ্জ বালাকুটি শিলঘাগুড়ি, ভানুকুমারী, শালডাঙ্গা, বক্সিরহাট প্রভৃতি এলাকার থেকে প্রায় ৩০০ মানুষ এই শিবিরে ভ্যাকসিন দেন। একদিকে, সহজেই ভ্যাকসিন পেয়ে যেমন খুশি সাধারণ মানুষ। অপরদিকে, প্রতিবেশী রাজ্যের মানুষকে সহযোগিতা করতে পেরে খুশি অসম প্রশাসন।

বালাকুঠির, তুফানগঞ্জ, ভানুকুমারী বাসিন্দারা জানান, তারা করোনার ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন থেকেই বিভিন্ন জায়গার স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে ঘুরেছেন। কিন্তু কোথাও ভ্যাকসিন দিতে পারেননি। অবশেষে খবর পেয়ে সীমান্ত পেরিয়ে অসমে এসে তারা সহজেই ভ্যাকসিন দিতে পেরে খুব খুশি। সেইসঙ্গে তারা জানান, যেভাবে এই শিবিরে ভ্যাকসিনের পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে সেই ব্যবস্থাতেও তারা খুশি। অসম ছাগলিয়ার ওই শিবিরের দায়িত্বে থাকা অসমের স্বাস্থ্যকর্মীরা জানান, প্রতিদিন প্রায় ২৫০ জনের টিকাকরণ করছেন। একটি পরিচয়পত্র থাকলেই ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। অসম বা বাংলার মানুষ হিসেবে কাউকে আলাদা বিচার করা হচ্ছে না।

- Advertisement -

তুফানগঞ্জের বিডিও প্রসেনজিৎ কুন্ডু জানান‌, সীমান্ত সংলগ্ন অসমের শিবিরে কাদের ভ্যাকসিন দেবেন সেটা ওই রাজ্যের ব্যাপার। বিষয়টি তিনি খোঁজ নিয়ে দেখবেন।  তুফানগঞ্জ ২ ব্লকের বাসিন্দাদেরও নিয়মিত ভ্যাকসিন দেওয়া চলছে। ইতিমধ্যে তারা ৮৭০০০ ভ্যাকসিন দিয়েছেন। পর্যায়ক্রমে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ চলছে। তা সত্ত্বেও কেউ অসমে গিয়ে ভ্যাকসিন নিচ্ছেন কি না সেটা খোঁজ নিয়ে দেখবেন।