কোয়ারান্টিন সেন্টারে আবাসিকদের বিক্ষোভ

তুফানগঞ্জ: কোয়ারান্টিন সেন্টারে নিম্নমানের খাবার দেওয়ার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ দেখালেন আবাসিকরা। মঙ্গলবার সকালে তুফানগঞ্জ মহকুমা মানসিক হাসপাতালের কোয়ারান্টিন সেন্টারের ঘটনা। নিম্নমানের খাবার দেওয়ার প্রতিবাদ করায় এক আবাসিককে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। কোয়ারান্টিন থাকা ক্ষুব্ধ আবাসিকরা চিড়ে, মুড়ি ফেরত দিয়ে উচ্চগুণমাণ সম্পন্ন খাবারের দাবি জানায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, কোচবিহার জেলার তুফানগঞ্জ এলাকার ভিন্ন রাজ্য ফেরত শ্রমিকদের তুফানগঞ্জ মহকুমা মানসিক হাসপাতালের কোয়ারান্টিন সেন্টারে রাখা হয়েছে। অভিযোগ, গত কয়েক দিন ধরে সেই কোয়ারান্টিন সেন্টারে থাকা আবাসিকদের নিম্নমানের খাবার দেওয়া হচ্ছে।

- Advertisement -

এদিকে এই অভিযোগে গত সোমবার তুফানগঞ্জের মহকুমাশাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দেয় বিজেপি। সেদিন বিজেপির প্রতিনিধি দলকে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন মহকুমাশাসক। তারপর এদিন সকালে কোয়ারান্টিন সেন্টারে খাবার পৌঁছাতেই তা নিম্নমানের বলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন আবাসিকরা। এর ফলে কোয়ারান্টিন সেন্টার লাগোয়া এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ। খাবার না নিয়ে পুলিশের সামনে ফের বিক্ষোভ শুরু করেন আবাসিকরা। এই সময়ে এক জন আবাসিককে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। শেষ পর্যন্ত চিড়ামুড়ি ফেরত যায়।

আবাসিকদের মধ্যে এক বলেন, করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচার জন্য এখানে উঠতে হল। কিন্তু, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গোয়ালঘরে থাকার মতো অবস্থা আমাদের। খাবারটাও নিম্নমানের দেওয়া হচ্ছে। প্রতিবাদ করলে মারধর জুটছে কপালে। খাবার প্রদানকারী ঠিকাদার সংস্থার এক প্রতিনিধি জানান, ভাত, ডাল খারাপ থাকায় প্রতিবাদ জানান আবাসিকরা।এ দিন সকালে চিড়ে-মুড়ি নিয়ে গেলে তা ফেরত দিয়ে দেন তাঁরা। এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে কিছুই জানেন না বলে মন্তব্য করেন মহকুমাশাসক।