গোষ্ঠী কোন্দলের জেরে পদত্যাগ করছেন তৃণমূলের জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরা

651

বর্ধমান, ১২ মার্চঃ রাজ্য জুড়ে ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি পালন চলছে। তার মাঝেই পূর্ব বর্ধমানে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল জোরালো হয়ে উঠেছে। একের পর এক জেলা পরিষদ ও পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরা পদত্যাগ করছেন। বুধবার জেলাশাসকের কাছে গিয়ে পূর্বস্থলী ২ নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের শিক্ষক নেতা তথা জেলা পরিষদ সদস্য দেবাশিষ নাগ পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছিলেন। এরপর ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই বৃহস্পতিবার পূর্বস্থলী ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির ৩ সদস্য পদত্যাগ করলেন। এদিন মৃদুলা দেবনাথ, মদন মোহন পাল, ফজলুল হক মন্ডল কালনা মহকুমা শাসকের দপ্তরে তাঁরা পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। পদত্যাগের কারণ হিসাবে তাঁরা জানিয়েছেন, পূর্বস্থলীর প্রাক্তণ তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক তপন চ্যাটার্জি তাঁদের কোনো মিটিং-মিছিলে ডাকতেন না। সকলের সঙ্গে তিনি খারাপ ব্যবহার করতেন। কোনোরকম উন্নয়নমূলক কাজ প্রাক্তণ বিধায়ক করতে পারছিলেন না। সেই কারণেই পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য পদ থেকে তাঁরা অব্যাহতি নিয়েছেন। যদিও, সাংবাদিক বৈঠক করে পূর্বস্থলীর প্রাক্তণ বিধায়ক তথা বর্তমান পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি তপন চ্যাটার্জি জানিয়েছেন, ৩ জন দলত্যাগী দীর্ঘদিন ধরে দলবিরোধী কাজ করছিলেন। বিজেপির সঙ্গে তাঁদের নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে। বিজেপি সাংসদ আলুওয়ালিয়ার সাথে ফজলুল হক মন্ডলের ছবিও এদিন তপন বাবু প্রকাশ্যে আনেন। তপন বাবু আরও জানিয়েছেন, ওঁরা পদত্যাগ করায় দল শুদ্ধ হয়েছে। রাজ্যের মন্ত্রী তথা পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল সভাপতি স্বপন দেবনাথও পদত্যাগীদের গদ্দার বলে কটাক্ষ করেছেন। যারা পদত্যাগ করেছে, তাঁদের বিরুদ্ধে দল যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।