মাথাভাঙ্গায় রাজ আমলের স্থাপত্যের চরিত্র বদলানোর অভিযোগ

266

মাথাভাঙ্গা : কোচবিহার রাজ আমলের ঐতিহ্য ধরে রাখার লক্ষ্যে যখন কোচবিহার শহরকে হেরিটেজ ঘোষণার চেষ্টা চলছে, তখন মাথাভাঙ্গা শহরে রাজ আমলে তৈরি পুলিশের সিআই-এর আবাসন সিমেন্ট-বালির প্লাস্টারে ঢাকা পড়ল। শহরের প্রাণকেন্দ্রে পুলিশের এই আবাসন সংস্কারের নামে রাজ আমলের স্থাপত্যের চরিত্রই পালটে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার সমালোচনা করেছে কোচবিহার হেরিটেজ সোসাইটি। রাজ আমলে তৈরি ভবনের চরিত্র পরিবর্তন করা ঠিক হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন রাজ্যের অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন। কেন এ ধরনের ঘটনা ঘটল, তা জানতে তিনি কোচবিহারের জেলা শাসকের সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন। ঘটনার নিন্দা করেছে পুণ্যভমি খলিসামারি পঞ্চানন বর্মা মেমোরিয়াল অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট। মাথাভাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দ্রজিৎ সরকার বলেন, এই ঘটনার কথা আমার জানা নেই। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

কোচবিহার হেরিটেজ সোসাইটির সম্পাদক অরূপজ্যোতি মজুমদার বলেন, কোচবিহার জেলা প্রশাসন যখন গোটা কোচবিহার জেলাকেই হেরিটেজ কোচবিহার-এর ব্যানারে নিয়ে আসতে উদ্যোগী হয়ছে, সেই সময় মাথাভাঙ্গা শহরে মাথাভাঙ্গা পুলিশের সিআই-এর সরকারি আবাসন সংস্কারের নামে বালি-সিমেন্টের প্লাস্টার দিয়ে ঢেকে দেওয়া উচিত হয়নি। রাজ আমলের ঐতিহ্য ধরে রাখা নিয়ে জেলার প্রত্যেক নাগরিকের সক্রিয় হওয়া প্রয়োজন। রাজ আমলের প্রতিটি স্থাপত্য নিয়ে য়ে আবেগ কোচবিহারজুড়ে রয়েছে, সেই কথা মাথায় রেখে সেগুলি সংস্কার করা প্রযোজন। এক্ষেত্রে সংবেদনশীলতা অন্যতম শর্ত হওয়া দরকার। অরূপজ্যোতিবাবু আরও বলেন, সিমেন্টের বদলে এ ধরনের ভবন সংস্কার ও সংরক্ষণে সাবেকি রং ও চুন-সুড়কির ব্যবহারে বিশেষ সুবিধা থাকে কি না তাও প্রকৌশলীদের দিয়ে খতিয়ে দেখা উচিত। পুণ্যভূমি খলিসামারি পঞ্চানন বর্মা মেমোরিয়াল অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্টের সম্পাদক গিরীন্দ্রনাথ বর্মন বলেন, কোচবিহার রাজ আমলের স্থাপত্য সহ সমস্ত রাজ আমলের নিদর্শনের প্রতি কোচবিহারবাসীর ভাবাবেগ জড়িয়ে রয়েছএ। সেগুলির সংস্কার বিজ্ঞানভিত্তিক হওয়া উচিত ছিল। তা না করে রাজ আমলে তৈরি মাথাভাঙ্গা পুলিশের সিআই আবাসন সংস্কারের নামে সিমেন্ট-বালির প্লাস্টার দিয়ে ঢেকে দেওয়ার ঘটনায় অনেকের ভাবাবেগে ধাক্কা লাগবে। বিষয়টি নিয়ে শীঘ্রই আমরা কোচবিহার জেলা শাসকের কাছে অভিযোগ জানাব।

- Advertisement -