জুতো সেলাই করেও উচ্চমাধ্যমিকে নব্বই শতাংশ

271

চাঁচল : বাবা নেই। কিন্তু দাদা আছেন। রয়েছেন মা। পরিবারে সকলে থাকলেও প্রায় তিন বছর আগে বাবা মারা যাওয়ার পরে সংসারের দায়িত্ব এসে পড়ে চাঁচল-১ ব্লকের অলিহণ্ডা গ্রামের কনুইপাড়ার যুবকের। পড়াশোনা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয় সঞ্জয় রবিদাসের। পরিবারের সমস্ত খাবারের ব্যবস্থা করে সে নিজেই। তারপরে আনুষঙ্গিক নানা কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়। তবে পড়াশোনার প্রতি সঞ্জয়ে আগ্রহ আছে। তাই সমস্ত প্রতিকূলতা সে জয় করে বসেছিল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায়। পেয়েছে ৪৫১ অর্থাৎ নব্বই শতাংশের মতো। মাধ্যমিকেও সে ৪৬৫  পেয়েছিল।

সঞ্জয় কনুয়া বাজারে ফুটপাথে বসে জুতো সেলাই করে। সে জানায়,  জুতো সেলাই করে ১০০ টাকা রোজগার হয়। সেই টাকা দিয়ে পরিবারের তিন সদস্যদের ভরণ-পোষণ করে। দুঃস্থদের খাওয়াতে গিয়ে অনেক সময় বাড়িতে তাকে মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। সংসারের হাল ধরতে মাকেও পরের জমিতে দিনমজুরি করতে হয়। দাদা সাগর রবিদাস পঞ্জাবে রাইস মিলে শ্রমিকের কাজ করতেন। পঞ্জাব থেকে এসে গাজোলে একটা শপিংমলে কাজ করতেন। কিন্তু লকডাউনে কাজ হারিয়ে দাদা বর্তমানে বাড়িতে বসে রয়েছেন। সঞ্জয় বলে, ‘বাবার জমিজায়গা নেই। পৈতৃক সূত্রে বাবার দুকাঠা ভিটেবাড়ি পেয়েছি। সেখানে কোনওরকমে ভাঙাচোরা বাড়ি রয়েছে।’ মেধাবী সঞ্জয় অদম্য জেদ ও ইচ্ছাশক্তির জোরে এগোতে চায়। যাদবপুর অথবা রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীনে ইংরেজি বা ইতিহাস নিয়ে পড়তে ইচ্ছুক। পড়াশোনা করে প্রশাসনিক বিভাগে চাকরি পেতে ইচ্ছুক। সে বলে, ‘বিডিও হয়ে সমাজের পিছিয়েড়া দরিদ্র ছেলেমেয়েছের পাশে দাঁড়াতে চাই।’

- Advertisement -

সঞ্জয়ের মা কল্যাণী রবিদাস বলেন, ‘ছেলেকে কলেজে ভর্তি করার মতো অর্থ নেই। এনিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন কল্যাণীদেবী। তাই উচ্চশিক্ষার জন্য কোনও সরকারি বা বেসরকারি সাহায্য না পেলে কলেজে ভরতি হতে পারবে না সঞ্জয়।’ কনুয়া হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক রাজা চৌধুরী সঞ্জয়কে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। এলাকার জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলাম ব্যক্তিগতভাবে সঞ্জয়কে আর্থিক সাহায্যের কথা জানিয়েছেন। চাঁচল-১ ব্লকের বিডিও সমীরণ ভট্টাচার্য বলেন, ‘সঞ্জয়ের উচ্চশিক্ষার ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া ব্লক প্রশাসনের মাধ্যমে দুঃস্থ পরিবারটিকে কিছু সাহায্য করা যায় কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে। সে উচ্চশিক্ষার জন্য সাহায্যের আবেদন করলে ব্লক প্রশাসনের তরফে আর্থিক সাহায্যের বিষয়টি ভাবা হতে পারে।’

তথ্য-মুরতুজ আলম