জাতীয় সড়কের নীচের মাটি সরে দুর্ঘটনার শঙ্কা

অরিন্দম চক্রবর্তী, কামাখ্যাগুড়ি : ৩১সি জাতীয় সড়কের ফোর লেন অংশ সম্প্রসারণের পর থেকে যাতায়াত সহজ হয়েছে। কামাখ্যাগুড়ি সংলগ্ন ৩১সি জাতীয় সড়কের ধারে বিভিন্ন অংশে রেইনকাটে অনেকটা মাটি ধসে যাওয়ায় ক্রমশই দুর্ঘটনার আশঙ্কা বাড়ছে। ৩১সি জাতীয় সড়কের বারবিশা থেকে আলিপুরদুয়ারগামী রাস্তার রায়ডাক ১ নম্বর নদীর সেতু সংলগ্ন এলাকায় এই রেইনকাটের ফলে কংক্রিটের জাতীয় সড়কের নীচের থেকে ক্রমশই মাটি সরে যাচ্ছে বলে অভিযোগ বাসিন্দাদের। হাঁড়িভাঙ্গা সেতু সংলগ্ন এলাকায়, গদাধর নদী সংলগ্ন এলাকায়, কামাখ্যাগুড়ি সংলগ্ন গুয়াবাড়ি টোলগেটের ২০০ মিটার অদূরে রেইনকাটে সড়কের কংক্রিটের চাঁইয়ে নীচ থেকে মাটি সরে গিয়ে গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

পারোকাটার বাসিন্দা সঞ্জয় সরকার বলেন, প্রতিদিন জাতীয় সড়কে প্রচুর ভারী ভারী গাড়ি চলাচল করে। অনেক সময় জাতীয় সড়কের ধারে গাড়িগুলি পার্কিং করে নিকটবর্তী ধাবা বা হোটেলে চালকরা বিশ্রাম নেন। দীর্ঘক্ষণ কোনও ভারী যানবাহন এই অংশে দাঁড়িয়ে থাকলে যে কোনও মুহূর্তে সড়কের এই অংশগুলি ভেঙে পড়তে পারে বলে বাসিন্দাদের আশঙ্কা। তাঁরা বলেন, কিছু কিছু জায়গায় ৫-৬ ফুট গভীর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। অবিলম্বে কর্তৃপক্ষের রাস্তার এই অংশ মেরামত করা উচিত। চলতি বর্ষায় প্রচুর বৃষ্টিতে রেইনকাটে জাতীয় সড়কের ধারে বিভিন্ন অংশে এরকম মাটি ধসে গিয়ে বিপজ্জনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। সড়কের ওই নির্দিষ্ট অংশগুলির মেরামত না করা হলে যে কোনও মুহূর্তে বড় দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

- Advertisement -

কামাখ্যাগুড়ির যুবক দীপ ঘোষ বলেন, রেইনকাটে সড়কের নীচের অংশের মাটি ধসে গিয়েছে। রায়ডাক নদীর তীরের অংশে একটি গার্ডওয়াল রয়েছে। রেইনকাটে গার্ডওয়াল ও সড়কের মাঝের ফাটল ক্রমশ বেড়ে যাচ্ছে। অবিলম্বে এর মেরামতির প্রয়োজন। আবার টোলগেটের কাছেও রাস্তার নীচ থেকে মাটি ক্রমশ সরে যাচ্ছে। কর্তৃপক্ষের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা প্রয়োজন। জাতীয় সড়কের ধার বরাবর ওই অংশগুলিতে অনেক সময় ভারী দূরপাল্লার লরি দাঁড়িয়ে থাকে। অধিকাংশ সময় বাইক, টোটোর মতো ছোট যানবাহন ওই অংশগুলি দিয়ে যাতায়াত করে। যে কোনও মুহূর্তে কংক্রিটের চাঙড় ভেঙে দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। এই বিষয়ে জাতীয় সড়কের প্রোজেক্ট ডিরেক্টর সঞ্জীব শর্মা জানান, ঠিকাদারের সঙ্গে কথা বলে অবিলম্বে যাতে ওই অংশগুলির মেরামত করা যায় সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।