সৌরভ রায়, ফাঁসিদেওয়া : দুর্গাপুজোর প্রতিমা বিসর্জনের পর এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও ফাঁসিদেওয়ার বুক চিরে বয়ে চলা পিচলা নদীতে এখনও প্রতিমার কাঠামো ভাসছে। এলাকার প্রায় সব ক্লাবই ওই নদীতে ভাসান পর্ব সেরেছে। কিন্তু তারপর, গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষ নদী পরিষ্কার করতে উদ্যোগী হয়নি বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। ফলে নদীদূষণের সমস্যা প্রকট হয়ে উঠেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, গোয়ালটুলি দিয়ে ফাঁসিদেওয়া ঢোকার মুখে পিচলা নদীর সেতু পার করেই য়েতে হয়। ভাসানের সময় প্রতিমা, বিভিন্ন পুজোর সামগ্রী, এমনকি প্লাস্টিকও নদীতে ফেলা হয়। এদিকে, ওই এলাকা দিয়ে পিচলা নদীর যে অংশ গিয়েছে তা তেমন খরস্রোতা না হওয়ায়, নদীর গতিপথ রুদ্ধ হয়ে যেতে পারে বলে অনেকে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। এনিয়ে বিভিন্ন পুজোর উদ্যোক্তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। দ্রুত কাঠামো তুলে নদী দূষণমুক্ত করার দাবি উঠেছে। এলাকার পরিবেশপ্রেমী বাপন দাস বলেন, যে সমস্ত ক্লাব নদীতে প্রতিমা বিসর্জন করেছে, তাদেরই নদীর গতির কথা মাথায় রেখে কাঠামো তুলে নেওয়া উচিত। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা করা হয় না। ফলে নদী দূষিত হচ্ছে। এবিষয়ে ফাঁসিদেওয়া গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সাহানারা বেগমকে ফোন করা হলে তিনি এই প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।