মেকানিক হওয়াই স্বপ্ন রিয়া-প্রিয়াংকার

188

রায়গঞ্জ: আগামীদিনে নিজের পায়ে দাঁড়াতে গাড়ির মেকানিক হতে চায় রিয়া ও প্রিয়াংকার। উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পর কলেজে ভর্তি হলেও প্রথাগত শিক্ষায় সীমাবদ্ধ থাকতে চায় না তাঁরা। তাই গতবছর ইটাহার আইটিআই কলেজে ফিটার ট্রেডে ভর্তি হয়েছে। সেখানে নিয়মিত প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। তাঁদের ইচ্ছে, রেল অথবা কোনও গাড়ি শিল্পে দক্ষ মেকানিক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়া।

প্রিয়াংকা ঘোষ ও রিয়া রায় দুজনের বাড়ি মালদা জেলার গাজলে। দুর্গাপুরের গভর্নভেন্ট আইটিআই কলেজে ফিটার ট্রেডে ভর্তি হয় তাঁরা। করোনার কারণে স্কুল কলেজ না খুললেও তাঁরা ওয়ার্কশপে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। পাঞ্চিং, ফাইলিং তৈরির পাশাপাশি হ্যাসকো  ব্লেড দিয়ে কিভাবে লোহা কাটতে হয় সে বিষয়ে হাতেকলমে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে।

- Advertisement -

রিয়া বলেন, ‘উচ্চমাধ্যমিক পাশ করার পর ইচ্ছে হয় টেকনিক্যাল লাইন নিয়ে পড়ার। অনেকদিনের ইচ্ছে ছিল গাড়ির মেকানিক হব, গাড়ির যন্ত্রাংশ তৈরি করব। ছেলে আর মেয়ের মধ্যে কোনও প্রভেদ নেই। শুধু কি ছেলেরাই মেকানিক হবে, আমরা হতে পারি না।‘ একই যুক্তি প্রিয়াংকার। সে জানায়, কলেজে পাশ কোর্সে ভর্তি হওয়ার পর ভালো লাগছিল না। ইচ্ছে আছে রেলে মেকানিক পদে চাকরি করার। ছেলেদের সঙ্গে সমান তালে এগিয়ে যেতে হবে আমাদের।

ফিটার ট্রেডের প্রশিক্ষক রাম কুমার দাস বলেন, ‘মেয়েরা আইটিআই প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। ফিটার ট্রেডে ছাত্রীর সংখ্যা বাড়ছে। এই ট্রেডে পাশ করার পর রেল ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি শিল্পে চাকরির সুযোগ আছে।‘ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শুভঙ্কর দাস জানান, আমাদের এখানে মেয়েরা টেকনিক্যাল প্রশিক্ষণের জন্য এগিয়ে আসছে। অনেকে চাকরি পাচ্ছেন।