রসিকবিলে ঢোকার রাস্তা খানাখন্দে ভরা, চলাচলে দুর্ভোগ

কামাখ্যাগুড়ি : রসিকবিল প্রকৃতি পর্যটনকেন্দ্রে ঢোকার ও বেরোনোর রাস্তাটি বেশ কয়েক বছর ধরে বেহাল। খানাখন্দে ভরা। গোটা রাস্তায় জমেছে জলকাদা। চলাচলের অযোগ্য হয়ে গিয়েছে রাস্তাটি। রাস্তাটি মেরামতের দাবি তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা ও পর্যটকরা।

জানা গিয়েছে, পর্যটন মরশুমে মাসে ২৪ হাজার ও অন্য সময়ে মাসে গড়ে সাড়ে সাত হাজার মানুষ ঘুরতে যান রসিকবিল পর্যটনকেন্দ্রে। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে পর্যটনকেন্দ্রটি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটনকেন্দ্রে মানুষের ঢল নামবে বলে আশা করা হচ্ছে। রসিকবিল পর্যটনকেন্দ্র কামাখ্যাগুড়ি থেকে ৬ কিমি ও তুফানগঞ্জ থেকে ১৬ কিমি দূরে কামাখ্যাগুড়ি-তুফানগঞ্জ রাজ্য সড়কের পাশে। রাজ্য সড়ক থেকে তিনশো মিটার দূরেই রসিকবিল পর্যটনকেন্দ্রের মূল গেট। রাজ্য সড়ক থেকে মূল গেট পর্যন্ত এই তিনশো মিটার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ থাকায় বাইরের মানুষের চলাচল না থাকলেও রসিকবিল বনবস্তির মানুষ ও পর্যটনকেন্দ্রর কর্মীরা নিয়মিত যাতায়াত করেন এই রাস্তায়। রাস্তার বেহাল অবস্থার কারণে তাঁদের চলাচলে সমস্যা হচ্ছে।

- Advertisement -

স্থানীয় গোকুল বর্মন জানান, রসিকবিল পর্যটনকেন্দ্রের রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। রাস্তাটি দ্রুত মেরামতের দাবি জানান তিনি। কামাখ্যাগুড়ির এক বাসিন্দা জানান, কোথাও ঘুরতে যাওয়ার কথা হলে রসিকবিলের কথা সবার আগে মনে আসে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও বন্যপ্রাণী দেখতে ওখানে বহু মানুষ যান। রসিকবিলের পরিকাঠামো আগের তুলনায় অনেকটাই উন্নত হয়েছে। তবে পর্যটনকেন্দ্রে ঢোকার মূল রাস্তাটি সংস্কার করা প্রয়োজন। ডিএফও (কোচবিহার) বিমান বিশ্বাস জানান, বর্ষা পেরোলেই রাস্তা সারাই করা হবে।