করোনায় কী গোষ্ঠী সংক্রমণ! যাচাই করতে ব্যবসায়ীদের লালা পরীক্ষা 

263

দিনহাটা: গত কয়েকদিন থেকেই করোনা আক্রান্তের তালিকায় শীর্ষে থাকা দিনহাটা মহকুমায় আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই হ্রাস পেয়েছে। তেমনি পরিযায়ী শ্রমিকদের আসাও বন্ধ হয়েছে। যার ফলে অনেকটাই স্বস্তি ফিরেছে দিনহাটাবাসীর মনে।

তবে দিনহাটা মহকুমায় এখনও পর্যন্ত পরিযায়ী শ্রমিক ছাড়া অন্যান্য সাধারণ বাসিন্দাদের করোনা টেস্ট সেভাবে হয়নি। এর ফলে সংকট কতটা কেটেছে তা নিয়ে একটা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। সে কারণেই সাধারণ মানুষ করোনা আক্রান্ত কিনা, তা যাচাই করতেই শনিবার ডেপুটি সিএমওএইচ-১ ডাঃ বিশ্বজিৎ রায়ের উপস্থিতিতে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে পুরসভার অন্তর্গত ব্যবসায়ীদেরও সোয়াব নেওয়া হয়।

- Advertisement -

এর পরেই বাসিন্দাদের মনে প্রশ্ন দেখা দেয়, তবে কি অন্যান্যদের মধ্যে সংক্রমণের কোনও খবর রয়েছে। অবশ্য এবিষয়ে ডেপুটি সিএমওএইচ-১ বলেন, সারা জেলাতেই এই কর্মসূচি চলছে। আমাদের প্রধান লক্ষ্যই জেলাকে করোনা মুক্ত রাখা। সেদিক থেকে আমরা অনেকটাই এগিয়ে রয়েছি। তিনি জানান, ইতিমধ্যে আক্রান্তের অধিকাংশই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। কিন্তু যারা প্রতিদিনকার জীবনে নানা মানুষের সংস্পর্শে আসছেন তারা কতটা সংকটের বাইরে তা জানতেই বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের সোয়াব নেওয়া হচ্ছে।

এবিষয়ে মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ জানান, ইতিমধ্যে দিনহাটা মহকুমায় পরিযায়ী শ্রমিকদের আসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাঁদের মধ্যে যারা আক্রান্ত হয়েছিলেন, তাঁদের অধিকাংশই আজ সুস্থ। তিনি বলেন, আমরা দেখতে চাইছি তাঁরা বাদেও যারা প্রতিনিয়ত নানা শ্রেণির মানুষের সংস্পর্শে থাকেন, যেমন- ওষুধ বিক্রেতা, গালামাল দোকানদার, কাপড় ব্যবসায়ী সহ আরও অন্যান্য বাসিন্দা কোনওভাবে সংক্রমিত কিনা তা দেখার জন্যই আজকের সোয়াব নেওয়া হচ্ছে।

তবে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি এদিন। মহকুমা শাসক জানান, ভয়ের কারণে এটা হয়েছে। সকলের স্বার্থে আগামী দিনে আবারও এই উদ্যোগ নেওয়া হবে। মহকুমা শাসক জানান, এদিন গোটা মহকুমায় ৩১৩ জনের সোয়াব নেওয়া হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ৪০ জন ব্যবসায়ীও রয়েছেন।