সেনায় মহিলাদের নিয়োগ, কেন্দ্রকে একমাস সময় সুপ্রিমকোর্টের

205

নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় সরকার ভারতীয় সেনাবাহিনীতে মহিলাদের স্থায়ী নিয়োগ সংক্রান্ত নির্দেশ না মানায় উষ্মা প্রকাশ করল সুপ্রিমকোর্ট। কেন ওই নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করা হয়নি, সেব্যাপারে মঙ্গলবার বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রকের কৈফিয়ত তলব করে।

গত ১৭ ফেব্রুযারি সেনাবাহিনীর পার্মানেন্ট কমিশন এবং কমান্ড পদে যোগ্য মহিলাদের নিয়োগ করতে ঐতিহাসিক রায় দিয়েছিল। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের আইনজীবী আর বালাসুব্রহ্মণিয়াম শীর্ষ আদালতকে জানান, ওই নির্দেশ প্রায় সম্পূর্ণ (সাবস্ট্যানশিয়াল) মানা হয়েছে।

- Advertisement -

তাঁর বক্তব্যের বিরোধিতা করে আগামী একমাসের মধ্যে মহিলাদের সেনাবাহিনীতে নিয়োগ সংক্রান্ত নির্দেশ কার্যকর করতে বলে বিচারপতি চন্দ্রচূড় মন্তব্য করেন, ‘প্রায় সম্পূর্ণ মানা হয়েছে বলতে কী বোঝাতে চেয়েছেন আপনি! আদালতের রায় বেরোনোর পর তা প্রায় সম্পূর্ণ মানা হয়েছে বলে কোনও কিছু থাকতে পারে না। আপনাকে নির্দেশ সম্পূর্ণ মেনে চলতে হবে।’

সম্প্রতি মীনাক্ষী লেখি ও মীনাক্ষী অরোরা নামে দুই মহিলা আইনজীবী সর্বোচ্চ আদালতের কাছে অভিযোগ করেন, সুপ্রিমকোর্ট মহিলাদের স্থায়ীভাবে সেনাবাহিনীতে নিয়োগের ব্যাপারে যে নির্দেশ দিয়েছিল, তা ঠিকমতো পালন করছে না কেন্দ্রীয় সরকার।

তাঁরা জানান, ২০১১ সালে সেনায় শারীরিক মাপকাঠির বিষয়টি বন্ধ করে দেওয়া হলেও তা পুনরায় চালু করা হয়েছে। যার লক্ষ্য হল, ১০ বছরের বেশি সময় ধরে সেনায় কাজ করা মহিলা আধিকারিকদের পার্মানেন্ট কমিশনের সুবিধা পাওয়া থেকে বঞ্চিত করা।

এই অভিযোগ অবশ্য মানতে অস্বীকার করেন বালাসুব্রহ্মণিযাম। তিনি জানান, শীর্ষ আদালতের নির্দেশ কখনও অমান্য করা হয়নি। কেন্দ্রীয় সরকার ওই নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলবে। এরপর বিচারপতি চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ কেন্দ্রকে একমাসের সময় মঞ্জুর করে। প্রতিরক্ষামন্ত্রক অবশ্য ৬ মাসের সময়সীমা চেয়েছিল।