নয়াদিল্লি, ১৩ ফেব্রুয়ারিঃ নির্বাচনে কোনও রাজনৈতিক দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা চললে, তার তথ্য সেই দলের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে দিতে বলে নির্দেশ দিল সুপ্রিমকোর্ট। ওই প্রার্থীর বিরুদ্ধে কী ধরনের অপরাধের অভিযোগ রয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য দিতে হবে। রাজনীতিতে অপরাধীদের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে, তা ঠেকাতেই এই নির্দেশ বলে সুপ্রিমকোর্ট জানিয়েছে।

শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, ফৌজদারি মামলা চলছে, এমন কাউকে নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করালে, মনোনয়নের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ওই প্রার্থীর বিরুদ্ধে থাকা অপরাধমূলক কাজের অভিযোগ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পার্টির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে। একই তথ্য ওই একই সময়সীমার মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া ও সংবাদপত্রে প্রকাশিত করতে হবে। এছাড়া কেন অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগ সত্ত্বও ওই ব্যক্তিকে ভোটের টিকিট দেওয়া হয়েছে, তার ব্যাখ্যাও আপলোড করতে হবে ওই রাজনৈতিক দলকে। এই একই তথ্য মনোনয়নের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নির্বাচন কমিশনকেও লিখিত ভাবে জানাবে রাজনৈতিক দলগুলি। কোন প্রার্থী জেতার সম্ভাবনা কতটা, শুধুমাত্র সেটাই ভোটে লড়ার ক্ষেত্রে বিবেচিত হতে পারে না বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। কিছুদিন আগে এই বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টে আদালত অবমামনার মামলা দায়ের করেন বিজেপি নেতা ও আইনজীবী অশ্বিনী কুমার উপাধ্যায়-সহ কয়েকজন। বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানি শেষে এই রায় দেয় সুপ্রিমকোর্ট। কোনও দল এই নির্দেশ না মানলে তা আদালত অবমাননা হবে বলেও সুপ্রিমকোর্ট জানিয়ে দিয়েছে।