কাটোয়া কলেজের অধ্যাপকদের কুকীর্তির পর্দা ফাঁস

1303

বর্ধমান: টাকা নিয়ে পরীক্ষার খাতায় নম্বর বাড়িয়ে দেওয়ার চক্রান্তের পর্দা ফাঁস হল। একই সঙ্গে সামনে এল এক ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে অশ্লীল ভিডিয়ো পাঠিয়ে উত্যক্ত করার ঘটনা। যা নিয়ে বুধবার ব্যাপক বিক্ষোভ ছড়ায় পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া কলেজে। গোটা ঘটনার জন্য পড়ুয়ারা কলেজের জুলজি বিভাগের তিন শিক্ষকে দায়ী করেছেন।

ঘটনার বিহিত চেয়ে অডিয়ো ক্লিপিংস ও মোবাইলের স্ক্রিন শট্ সহ কলেজের অধ্যক্ষ এবং কলেজ পরিচালন সমিতির সদস্য তথা বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে পড়ুয়ারা। কলেজ কর্তৃপক্ষ অভিযোগের তদন্ত শুরু করলেও ঘটনায় নিন্দায় সরব হয়েছেন অবিভাবক মহল। যদিও জুলজি বিভাগের শিক্ষকদের দাবি, চক্রান্ত করে তাঁদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

- Advertisement -

কাটোয়া কলেজের পড়ুয়াদের কথায় জানা গিয়েছে, “অডিয়ো বক্তব্যটি জুলজি বিভাগের একজন শিক্ষকের। সেই অডিয়োর বক্তব্যে শোনা যাচ্ছে এক জন শিক্ষক আর একজন শিক্ষককে বলছেন, মেধাবী পড়ুয়ারা পরীক্ষায় কী করে ৮-৯ নম্বর পায় তা দেখে নেওয়া হবে। প্রয়োজনে ওই মেধাবী পড়ুয়ার উত্তরপত্র ছিড়ে ফেলে দেওয়া হবে। তারপর নম্বর পাঠানো হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়াও প্রতিটি বিষয়ে ৫০০ টাকা করে চারটি বিষয়ের জন্য ২ হাজার টাকা। আর টিউশনি ফি’র জন্য আরও ২ হাজার টাকা অর্থাৎ মোট চার হাজার টাকা দেওয়ার কথা একজন শিক্ষক এক ছাত্রকে মোবাইলে বলছেন। অডিয়োতে এমনটাও শোনা যাচ্ছে। পড়ুয়াদের আরও অভিযোগ জুলজি বিভাগের প্রধান শিক্ষক এক ছাত্রীর মোবাইলে লাগাতার অশ্লীল ভিডিয়ো ও মেসেজ পাঠিয়ে তাকে উত্যক্ত করছেন।

কলেজের জুলজি বিভাগের প্রধান নির্ভীক বন্দ্যোপাধ্যায় যদিও, সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে চক্রান্ত করা হচ্ছে। চক্রান্ত প্রসঙ্গে নির্ভীক বাবুর বক্তব্য, তিনি শিক্ষক সংগঠন ওয়েবকুপার সঙ্গে যুক্ত আছেন। তাই কলেজের একাংশ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে তাঁর চরিত্র হননের চেষ্টা চালাচ্ছে”।

কাটোয়া কলেজের অধ্যক্ষ নির্মলেন্দু সরকার বলেন, “মোবাইলের কয়েকটি স্ক্রিন শট্ ও অডিয়ো ক্লিপিংস সহ পড়ুয়ারা অভিযোগ করেছে। অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। অধ্যক্ষ জানান, তিনি বিষয়টি ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকেও জানিয়েছেন।” কলেজ পরিচালন সমিতির সভাপতি রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা মিললে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।