বিতর্কিত মন্তব্য করে শাস্তির মুখে ফাওলার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : ভারতীয় রেফারিদের সততা নিয়ে প্রশ্ন তোলা এবং অত্যন্ত মানহানিকর মন্তব্যের জন্য বুধবার শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি বড়ো শাস্তি দিল এসসি ইস্টবেঙ্গলের কোচ রবি ফাওলারকে। আগামী ৪ ম্যাচ নির্বাসন এবং পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা হল তাঁর।

 

- Advertisement -

এদিন ফেডারেশনের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি আলোচনায় বসে রবি ফাওলারের ক্রমাগত রেফারিদের বিরুদ্ধে করে চলা বিভিন্ন আচরণ ও মন্তব্য নিয়ে। চেয়ারম্যান ঊষানাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে দেশের প্রথম সারির আইনজীবিরা বিষয়টি খতিয়ে দেখার পর তাঁকে ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নির্বাসিত করেন। এই আলোচনায় গোয়া থেকে ভার্চুয়ালি শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির সামনে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ পান রবি ফাওলারও। সেখানে তিনিও নিজের দোষ অনেকটাই স্বীকার করে নিয়েছেন। জানান, সেই মুহূতের্র পরিস্থিতিতে হতাশা থেকে এমন কিছু মন্তব্য করে ফেলেছেন যেটা করা উচিৎ হয়নি।

তিনি একথা বললেও কমিটি অবশ্য বিষয়টিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখেছে। এদিন প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান হয় যে, এসসি ইস্টবেঙ্গল কোচ ক্রমাগত রেফারিদের উদ্দেশ্যে অপমানজনক মন্তব্য করে গিয়েছেন। গত ২৯ জানুযারি এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে তিনি নিজের যাবতীয় সীমা অতিক্রম করেন। অত্যন্ত নিন্দনীয় ও মানহানিকর মন্তব্য করেন বলে জানান হয়েছে। সেদিন তিনি মন্তব্য করেন, নিশ্চিত নই যে রেফারিদের মধ্যে ইংরেজ বিরোধী বা এসসি ইস্টবেঙ্গল বিরোধী কিছু ব্যাপার আছে কি না।

 

তাঁর এই মন্তব্য কোনওভাবেই গ্রহনযোগ্য নয় বলে কমিটির তরফে জানান হয়। এতে ভারতীয় রেফারিদের সম্মানহানি হয়েছে বলে কমিটি মনে করে। এই মন্তব্য করেছেন কি না জানতে চাওয়া হলে তিনি নিরুত্তরই থাকেন। তবে তাঁর বর্ণবিদ্বেষমূলক মন্তব্য করার কোনওরকম অভিপ্রায় ছিল না বলে সাফাই দেন ফাওলার। তাঁকে এরপর পরিষ্কার করে দেওয়া হয রেফারিদের সততা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনও অধিকারই তাঁর নেই।

এরপরেই জানিয়ে দেওয়া হয়, আগামী চার ম্যাচ নির্বাসন দেওয়া হচ্ছে ফাওলারকে। আগামী সাতদিনের মধ্যে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা না দেওয়া হলে নির্বাসন কমানোর আবেদনও করতে পারবেন না তিনি। এছাড়াও তাঁর পরবর্তী আচরনের দিকে কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে। এরপরেও তিনি এই ধরনের আচরন করলে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানান হয়েছে।
এদিকে এদিন এসসি ইস্টবেঙ্গল কর্তৃপক্ষ কোচের পাশে থাকার কথা জানিয়েছে। তবে এরইমধ্যে সহকারি কোচ টনি গ্রান্ট হঠাৎই টুইট করে ক্লাব রাজনীতিকে উসকে দিয়ে। তাতে সংবাদমাধ্যমকেও টেনে এনেছেন। তাঁর মন্তব্য, সংবাদমাধ্যম পূর্বতন কর্তাদের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে।