চ্যাংরাবান্ধায় দুর্ঘটনায় আহত স্কুলছাত্র, প্রতিবাদে পথ অবরোধ অন্য পড়ুয়াদের

382

চ্যাংরাবান্ধা, ৫ নভেম্বরঃ বাইকের ধাক্কায় আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্র। মঙ্গলবার দুর্ঘটনাটি ঘটে মেখলিগঞ্জ ব্লকের চ্যাংরাবান্ধায়। জানা গিয়েছে, জখম ওই ছাত্রের নাম রাজেশ হোসেন। সে চ্যাংরাবান্ধা উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র। এদিন ঘটনার প্রতিবাদে হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন এলাকায় পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। পরিস্থিতি সামাল দিতে মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছোলে তাদেরকেও বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়।

এদিন ওই স্কুলছাত্র বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফিরছিল। সেই সময় হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন এলাকায় একটি বাইক তাকে ধাক্কা মারে। আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে চ্যাংরাবান্ধা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হলে সেখান থেকে তাকে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করা হয়। এরপরই প্রতিবাদে আন্দোলন করে বিদ্যালয়ের অন্য পড়ুয়ারা। ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এদিন অবরোধের জেরে ভারত ও বাংলাদেশের পণ্যবোঝাই ট্রাকের লাইন দাঁড়িয়ে পড়ে। পড়ুয়া এবং স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশ প্রশাসনকে বারবার বলার পরও চ্যাংরাবান্ধা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং হাইস্কুলে প্রবেশের মুখে বাংলাদেশগামী সার্করোড দখল করে রাস্তার উপর ট্রাক দাঁড়িয়ে থাকছে। ফলে নিত্যদিন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। পড়ুয়াদের স্কুলে যেতে সমস্যা হচ্ছে। বিপদের ঝুঁকি নিয়ে পড়ুয়ারা নিয়মিত স্কুলে যাচ্ছে। আটকে পড়ছে অ্যাম্বুলেন্সও। অভিযোগ, পুলিশ প্রশাসন সবকিছু জেনেও নিষ্ক্রীয়। খবর পেয়ে বিদ্যালয় পরিচালন সমিতির সভাপতি লক্ষ্মীকান্ত সরকার এদিন ঘটনাস্থলে যান। তিনি বলেন, ‘হাসপাতাল, বিদ্যালয়ে প্রবেশের মুখে রাস্তার উপর নিয়মিত ট্রাকের লাইন লেগে থাকছে। এতে মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। সব জেনেও পুলিশ প্রশাসন কেন যানজট সমস্যা মেটাতে উদ্যোগী হন না, এটা বোধগম্য হচ্ছেনা। পড়ুয়াদের দাবি ও আন্দোলন যুক্তিযুক্ত বলেও তিনি মনে করেন।’ পড়ুয়ারা জানান, রাস্তা দখল করে প্রতিদিনই ট্রাকের ভিড় জমে থাকছে। পুলিশ প্রশাসন সক্রিয় হলে বিদ্যালয়ে প্রবেশের রাস্তার মুখে ট্রাক দাঁড়িয়ে থাকতে পারত না। এই রাস্তা নিয়মিত ফাঁকা রাখার ব্যবস্থা করা না হলে তাদের আন্দোলন আরও বড় হবে বলেও জানিয়েছে পড়ুয়ারা। এদিন দীর্ঘক্ষণ অবরোধ চলার পর শেষে পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। যানজট সমস্যা মেটাতে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে এদিন পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে।

- Advertisement -