খেলা হবে বলে ভোটের মিছিলে স্কুলের ছাত্ররাও

118

সুভাষ বর্মন, ফালাকাটা : ভোট বড়ই রঙ্গ। তাই ভোটের রঙ্গমঞ্চে ব্যতিক্রমী অনেক কিছু দেখা যাচ্ছে। ফালাকাটায় চোখ টানছে খেলা হবে স্লোগান তুলে স্কুল পড়ুয়াদের মিছিল। নানা পার্টির মিছিল, পথসভা থেকে শুরু করে ভোট প্রচারের সব কর্মসূচিতেই দেখা যাচ্ছে তাদের। তৃণমূলের মিছিলেই বেশি। অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত স্কুল না খোলায় ছোট ছেলেদের অনেককেই ঝান্ডা হাতে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দেখা যাচ্ছে। অভিভাবক যে দলের সমর্থক, তাঁর সন্তানও সেই দলের প্রচারে বেরিয়ে পড়ছে। মজা হল, এই স্কুল পড়ুয়াদের নাম নেই ভোটার তালিকায়।

নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি বাদে অন্য ক্লাসের জন্য এখনও স্কুলের গেট বন্ধ। বিধানসভা নির্বাচনের আগে তো সবার জন্য স্কুল খোলার কোনও সম্ভাবনাই নেই। এই পরিস্থিতিতে এই পড়ুয়াদের অনেকেই নিয়মিত পড়াশোনার জগৎ থেকে বিচ্ছিন্ন। দারিদ্র‌্যের কারণে অনেক পরিবারের পড়ুয়ারাই এখন কাজে বেরিয়ে পড়েছে। ফালাকাটায় কেউ কেউ রাস্তার পাশে পান, মশলার দোকানও খুলেছে। ট্যাব পাওয়ার জন্য উঁচু ক্লাসের ছেলেমেয়েরা অনলাইন পড়াশোনায় ব্যস্ত। কিন্তু নীচু ক্লাসের ছেলেরা কী করবে?  তারা তাই ভোটমাঝারে।

- Advertisement -

এক্ষেত্রে তৃণমূলের কর্মসূচিতেই স্কুল পড়ুয়াদের বেশি করে শামিল হতে দেখা যাচ্ছে। সম্প্রতি দলীয় প্রার্থীর উপস্থিতিতে বেশ কয়েক জায়গায় পদযাত্রা হয়। এ ছাড়া প্রতিটি অঞ্চলে ঘটা করে চলছে তৃণমূলের উদ্যোগে রাজবংশী সম্প্রদায়ের তেরেয়া পার্বণ। রোজ হচ্ছে পথসভা। বুথে বুথেও চলছে প্রচার। সেখানে ওরাও তালে তাল মিলিয়ে খেলা হবে স্লোগান দিচ্ছে। স্কুল পড়ুয়া গুয়াবরনগরের পার্থ বসাক সাফ বলল, এক বছর থেকে স্কুল বন্ধ। এভাবে বাড়িতে থেকে পড়াশোনা হচ্ছে না। তাই বাবার সঙ্গে মিছিলে গিয়েছি। আর এক ছাত্র সুমন বর্মনের গলায় তাকে সমর্থন, আমরা খেলার ছলে মিছিলে যাচ্ছি। ভালোই লাগছে।

তৃণমূল সমর্থক এক অভিভাবক গোকুল বসাকের মন্তব্য, রাজ্য সরকারের অনেক প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছি। আমার পরিবার তৃণমূলকেই সমর্থন করে। তাই দলের মিছিলে আমার সঙ্গে ছেলেও হেঁটেছে। কারণ, স্কুল বন্ধ থাকায় বাড়িতে ওদের মন বসছে না। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী সুভাষ রায় বলেন, স্কুল থেকে কলেজ পড়ুয়ারাও সরকারের নানা প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত। তাই দলের কর্মসূচিতে অভিভাবকদের পাশাপাশি অনেক পড়ুয়াও উৎসাহিত হয়ে অংশগ্রহণ করছে। শিক্ষক মহল অবশ্য অন্য মতে বিশ্বাসী। ফালাকাটার পারঙ্গেরপার শিশুকল্যাণ হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রবীর রায়চৌধুরীর মতে, স্কুলছাত্রদের হৃদয়ে বিশেষ রাজনৈতিক দলের রং দেওয়া কখনোই কাম্য নয়। এদের রাজনীতির বেড়াজালে না রেখে স্কুলের প্রতি উৎসাহ প্রদান করলে ভালো হয়।