পুজোর আগে খুলছে না স্কুল, ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর

879

কলকাতা: আপাতত স্কুল খুলছে না রাজ্যে। পুজোর আগে তো নয়ই। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাফ বক্তব্য, ছাত্রছাত্রীদের মহামারির মুখে ঠেলে দেওয়া সম্ভব নয়। রাজ্য সরকারের পূর্ব ঘোাষিত নির্দেশিকা অনুসারে ৩০ সেপ্টেম্বর অর্থাৎ বুধবার পর্যন্ত রাজ্যের স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা বন্ধ রাখার মেয়াদ ছিল। মঙ্গলবার পর্যন্ত কোনও নয়া নির্দেশিকা জারি হয়নি।

শিক্ষামন্ত্রীকে এদিন এব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, পরিকল্পনা ছাড়া শিশুদের স্কুলে এনে বিপদের মুখে ঠেলে দিতে পারে না সরকার। এখন স্কুল খুললে কয়েকদিনের মধ্যে পুজোর ছুটি শুরু হয়ে যাবে। স্কুল খোলা ও পঠনপাঠনের পদ্ধতি নিয়ে একটি বিস্তারিত স্বাস্থ্যবিধি তৈরি করছে শিক্ষা দপ্তর। কীভাবে ক্লাস হবে, তা নিয়ে আলোচনা চলছে। স্কুল খোলার আগে স্যানিটাইজেশনের কাজ করতে হবে। সেক্ষেত্রে বৃহস্পতিবার স্কুল খোলা যে একরকম অসম্ভব, তা বুঝিয়ে দিলেন পার্থবাবু। কেন্দ্র অনুমতি দিলেও পশ্চিমবঙ্গে পুজোর আগে যে স্কুল খোলার কোনও সম্ভাবনা নেই, তার স্পষ্ট ইঙ্গিত দেন শিক্ষামন্ত্রী।

- Advertisement -

অন্যদিকে, ১ থেকে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালযে চড়ান্ত সিমেস্টারের অনলাইন পরীক্ষার জন্য নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুত ও ইন্টারনেট পরিষেবার নির্দেশ দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অনলাইনে পরীক্ষা দিতে হবে বলে বিদ্যুত সংযোগ বা ইন্টারনেট না পেলে অসুবিধায় পড়বেন পড়ুয়ারা। সেকথা মাথায় রেখে আগেই সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছিল। মঙ্গলবার পার্থবাবু আবার ১৮ তারিখ অবধি বিদ্যুত ও ইন্টারনেট পরিষেবা অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিলেন। সিইএসসি ও রাজ্য বিদ্যুত পর্ষদকে বিদ্যুত পরিষেবার দিকে ওই কদিন কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছে।

ইন্টারনেট অপারেটর ও পরিষেবা প্রদানকারীদের বলা হয়েছে, পরিষেবায যেন ব্যাঘাত না ঘটে। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, ৩১ অক্টোবরের মধ্যে এই পরীক্ষার ফলপ্রকাশ করতে হবে। অন্যদিকে, মাধ্যমিক উত্তীর্ণদের জন্য একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সমযয়সীমা আবার বাড়ানো হল। এসম্পর্কে এদিন স্কুল শিক্ষা দপ্তরের তরফে জানানো হয়, ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন পড়ুয়ারা। ওইদিন পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশনও করা যাবে।