কলকাতা, ১৭ ফেব্রুয়ারিঃ ফের জোর করে সিনেমার প্রদর্শন বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ। এবার ঘটনাস্থল সংস্কৃতির পীঠস্থান বলে পরিচিত কলকাতায়। শুক্রবার মুক্তি পায় অনীক দত্তর নতুন সিনেমা ভবিষ্যতের ভূত। কিন্তু শনিবারই কলকাতার সব মাল্টিপ্লেক্স, সিঙ্গল স্ক্রিন হলে বন্ধ করে দেওয়া হয় এই সিনেমার প্রদর্শন। প্রশ্ন করা হলে জবাব এসেছে, ‘হায়ার অথিরিটি’-র নির্দেশেই সিনেমা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কোথাও আবার বলা হয়েছে হলের যান্ত্রিক ত্রুটি। যদিও অন্য সিনেমা চলেছে রমরম করে। আর এই ঘটনায় কার্যত ফুঁসছে টালিগঞ্জের সিনেমা পাড়ার একাংশ। তাঁদের মতে, সিনেমায় সাম্প্রতিক রাজনীতির বেশ কিছু থাকাতেই এই সিনেমা চলতে দেওয়া হচ্ছে না। সিনেমায় বেশ কিছু দৃশ্য রয়েছে, যেগুলি রাজ্যের বর্তমান শাসকদলের কাছে অস্বস্তিকর। পরিচালক অনীক দত্তও বলছেন, ভূতে ভয় পেয়েছে প্রশাসন। তবে কারও নাম করেননি তিনি। অনীক দত্ত জানিয়েছেন, রিলিজের কিছুদিন আগে প্রযোজকের কাছে ছবির বিষয় সম্পর্কে জানতে চায় পুলিশ। সে সময়  পুলিশকে জানানো হয়, এই ছবি সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পেয়েছে। অতএব ছবির বিষয়ে আপত্তিজনক কিছুই নেই। কিন্তু এরপর আচমকাই শনিবার শহরের বেশ অনেকগুলো হলেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ছবির প্রদর্শন। ইতিমধ্যেই সিনেমা বন্ধ হয়ে যাওয়ার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন পরিচালক শ্রীজিত মুখোপাধ্যায়, অনিকেত চট্টোপাধ্যায়, অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। সিনেমা বন্ধ করা নিয়ে সমালোচনা করেছেন ভবিষ্যতের ভূতের অভিনেতা কৌশিক সেন, অভিনেত্রী চান্দ্রেয়ী ঘোষ।  ফেসবুকে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিনও।