মহাকাশ গবেষণায় উৎসাহ বাড়াতে সেমিনার

688

প্রসেনজিৎ সাহা, দিনহাটা: ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে মহাকাশ গবেষণায় উৎসাহ বাড়াতে দিনহাটা হাই স্কুলের উদ্যোগে মহাকাশ গবেষণা নিয়ে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হল। বৃহস্পতিবার সেমিনারের প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহাকাশের ‘৯৩০’ কোটি আলোকবর্ষ দূরে থাকা নক্ষত্রপুঞ্জের সন্ধানকারী বিজ্ঞানী তথা দিনহাটা হাই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র কনক সাহা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের পরিচালন সমিতির সভাপতি সত্যজিৎ কার্জি সহ, সমস্ত শিক্ষক সহ বেশ কয়েকজন পড়ুয়া।

আয়োজকদের কথায় বড় আকারের সেমিনারের ইচ্ছা থাকলেও করোনা আবহে তা করা সম্ভব না হওয়ায় স্কুলকক্ষেই নির্দিষ্ট কয়েকজন পড়ুয়াদের নিয়ে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। এদিনের সেমিনারে প্রধান বক্তা তথা পুনের ‘ইন্টার ইউনিভার্সিটি সেন্টার ফর অ্যাসট্রোনমি অ্যান্ড অ্যাসট্রোফিজিক্স’ মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানী কনক সাহা উপস্থিত পড়ুয়াদের তারা, তারামন্ডল ও তাদের সন্ধান সম্পর্কিত বিস্তারিত আলোচনা করেন। পাশাপাশি তিনি যে তারামন্ডলের সন্ধান করেছেন, তার সম্পর্কেও নানা তথ্য তুলে ধরেন। আলোচনা করতে গিয়ে তিনি জানান, মহাকাশের অনেক অজানা গ্যালাক্সি রয়েছে যাদের নিয়ে বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে চলেছে। তিনিও সেরকম একটি গ্যালাক্সি বা নক্ষত্রপুঞ্জের শনাক্তকরণ করেছেন, যা ‘৯৩০’ কোটি আলোকবর্ষ দূরে থাকা একটি নক্ষত্রপুঞ্জ এবং যা মহাকাশে খুঁজে পাওয়া অন্যান্য নক্ষত্রপুঞ্জের থেকে সবচাইতে প্রাচীন। বহু বছর ধরে অন্যান্য দেশের বিজ্ঞানীরাও এই নক্ষত্রপুঞ্জের সন্ধান করছিলেন। পাশাপাশি তিনি আরও জানান, তার এই সন্ধান অনেক অজানা তথ্য খুঁজতে সাহায্য করবে। সেমিনারে উপস্থিত বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র স্বর্ণদ্বীপ সাহা জানান, এদিনের আলোচনায় মনের গভীরে থাকা অনেক অজানা প্রশ্নের উওর পেলাম। বিদ্যালয়ের শিক্ষক জয়ন্ত চক্রবর্তী জানান, মহাকাশ নিয়ে প্রত্যেকের মনেই অনেক কৌতূহল রয়েছে। সেই কৌতূহলের কিছুটা যাতে মেটে তার জন্যই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র তথা মহাকাশ বিজ্ঞানী কনক সাহার উপস্থিতিতে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে।

- Advertisement -