জঙ্গলে অবাধ প্রবেশ রুখতে একাধিক উদ্যোগ বন দপ্তরের

146
জঙ্গলে ছবি তোলার হিড়িক

লাটাগুড়ি: জঙ্গলে ঘাস সংগ্রহ করতে গিয়ে হাতির হানায় তিনজনের মৃত্যুর ঘটনার পর জঙ্গলের ভিতর অবাধ প্রবেশ আটকাতে একাধিক উদ্যোগ নিল জলপাইগুড়ি বনবিভাগের লাটাগুড়ি রেঞ্জ। শুধু জঙ্গলে অবাধ প্রবেশই নয়, জঙ্গলের মাঝে থাকা জাতীয় সড়কে গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রণ, জঙ্গলে নোংরা আবর্জনা ফেলা, মদ্যপান ও ধূমপান করা আটকাতে জঙ্গলের রাস্তায় সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর পাশাপাশি নজরদারির জন্য বিশেষ টিম গড়ল বন দপ্তর।

জঙ্গলে কাঠ সংগ্রহকারী এমনকি বন্যপ্রাণী দেখতে অতি উৎসাহী মানুষের জঙ্গলে প্রবেশ আটকাতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে বন দপ্তরকে। তার ওপর বিভিন্ন উৎসবের দিনে লাটাগুড়ি সহ আশপাশের জঙ্গলে বহু মানুষ দাঁড়িয়ে মদ্যপান ও খাবার খেতেন অহরহ। খাবারের উচ্ছিষ্ট অংশ, মদের বোতল জঙ্গলের ভিতরে পড়ে থাকার ঘটনা আটকাতে নজরদারি চালিয়েও হিমশিম খেতে হচ্ছে বন দপ্তরের কর্মীদের। এরই মাঝে গত মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি বনবিভাগের মোরাঘাট বনাঞ্চলে ঘাস সংগ্রহ করতে গিয়ে হাতির হানায় তিনজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এরপরই জঙ্গলে অবৈধ প্রবেশ আটকাতে একাধিক উদ্যোগ গ্রহণ করল বন দপ্তরের লাটাগুড়ি রেঞ্জ। এই উদ্দেশ্যে নজরদারির জন্য একটি বিশেষ টহলদারি টিম এমনকি জঙ্গলের পথে সতর্কতামূলক পোস্টার লাগানো হল বন দপ্তরের তরফে।

- Advertisement -

লাটাগুড়ি রেঞ্জের দায়িত্বপ্রাপ্ত বন আধিকারিক জন জাস্টিন জানান, এবার থেকে এই অবাধ প্রবেশ আটকাতে একটি টিম ২৪ ঘণ্টা কাজ করবে। সঙ্গে জঙ্গলের বিভিন্ন প্রবেশের আটটি জায়গাকে চিহ্নিতকরণ করা হয়েছে। সেখানে সিসিটিভি লাগানোর পরিকল্পনাও রয়েছে। শুধু তাই নয়, অকারণে জঙ্গলের মাঝে থাকা লাটাগুড়ি-চালসা গামী ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে কোনও গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমনকি, ন্যূনতম ১,১৫০ টাকা জরিমানাও করা হতে পারে জানিয়েছেন বনাধিকারিক।