মহানন্দার জলে প্লাবিত বেশকিছু গ্রাম

189

রায়গঞ্জ: মহানন্দার জলে প্লাবিত ইটাহার ব্লকের বেশকিছু গ্রামের একাংশ। বৃহস্পতিবার রাত থেকে প্রবল বৃষ্টির কারণে ওই এলাকাগুলোতে জল ঢুকতে শুরু করে। জলের তোড়ে বাঁধ ভাঙার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বানভাসি মানুষরা।

মহানন্দা নদীর জলে প্লাবিত হয়েছে ইটাহার ব্লকের ডামডোলিয়া বাজিতপুর, বাড়িওল, গোরাহার সহ বেশকিছু গ্রাম। বৃহস্পতিবার রাত থেকে চয়নপুর, গোরাহার, বাজিতপুর এলাকার নদীর জলে জলমগ্ন হয়ে পড়ে। অন্যদিকে, শুক্রবার সকাল থেকে নদীর জল ঢুকে পড়ে বাড়িওল এলাকার কয়েকটি বাড়িতে। এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন নদীর তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা। বিহার থেকে যেভাবে জল বাড়ছে তাতে উদ্বেগে তারা।

- Advertisement -

যে কোনও সময় নদীর বাঁধ ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন নদীপাড়ের বাসিন্দারা। ফলে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। যদিও এখনও পর্যন্ত ত্রাণ পৌঁছায়নি বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের বক্তব্য, বারিওল এর নদীর ধারের কিছু বাড়ি এদিন সকাল থেকে জল ঢুকতে শুরু করেছে। এই নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই, পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি। ত্রাণ সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। সমস্ত বিষয়টি বিডিওকে জানানো হয়েছে।

এদিন রায়গঞ্জ থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে ডামডোলিয়া, বাজিতপুর বারিওল ঘাট এলাকায় গিয়ে দেখা গেল মহানন্দা নদীর বাঁধের বিস্তীর্ণ অংশের ফাটল ধরেছে মেরামতিতে হাত লাগিয়েছেন সেচ দপ্তরের কর্তারা। সেচ দপ্তরের জেলা বাস্তুকার উত্তমকুমার হাজরা বলেন, ইটাহার এলাকায় পাঁচ হাজার বালির বস্তা মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।