মহানন্দায় অবৈধ নির্মাণের জেরে সংকটে নিকাশি, ক্ষোভ স্থানীয়দের

89

চাঁচল: চাঁচল শহরের পাশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে মরা মহানন্দা নদী। এই নদীই চাঁচল ও সংলগ্ন এলাকায় জল নিকাশির একমাত্র রাস্তা। কিন্তু অভিযোগ, নদী বুজিয়ে অবৈধ নির্মাণের জেরে সংকটে নিকাশি ব্যবস্থা। সামান্য বৃষ্টিতেই জলে ভাসছে গোটা এলাকা। তারপরেও নির্বিকার প্রশাসন। চাঁচলের বাসিন্দারা গণ স্বাক্ষর করে অবৈধ নির্মাণের বিরুদ্ধে পঞ্চায়েত, বিডিও, বিএলএলআরও ও এসডিওকে লিখিতভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন। পৃথকভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন চাঁচল-১ পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য অমিতেশ পান্ডেও। তিনি জানান, অনেকেই নদী জবরদখল করে অবৈধ নির্মাণ করেছেন। এখনও অনেক নির্মাণ কাজ চলছে। এতে জল নিষ্কাশনের ব্যাঘাত ঘটছে।

চাঁচলের বাসিন্দা দেবজিৎ রায় চৌধুরী, গোলাম আহমেদ রাজা, রাখি অধিকারি, পায়েল পোদ্দার, সৌভিক সরকাররা গণস্বাক্ষর করে মরা মহানন্দা নদীকে জবরদখলের হাত থেকে বাঁচানোর জন্য প্রশাসনের কাছে দরবার করেছেন। তাদের অভিযোগ, মরা মহানন্দা নদী ক্রমশ বুঁজে যাওয়ায় মুখ থুবড়ে পড়েছে চাঁচলে নিকাশি ব্যবস্থা। কেননা পুরো চাঁচল শহর ও আশপাশের কয়েকটি গ্রামের একমাত্র জল নিষ্কাশনের পথ এই নদী। তাই বৃষ্টি হলেই জল জমে থাকে। রাস্তার জল উপচে বাড়ি ঘরে ঢুকে পড়ে।

- Advertisement -

স্থানীয় জেলা পরিষদ সদস্য সামিউল ইসলাম বলেন, ‘অবৈধ নির্মাণ কাজ বন্ধের জন্য জেলা শাসককে জানিয়েছেন।’ চাঁচলের মহকুমা শাসক সঞ্জয় পাল বলেন, ‘অভিযোগ পেয়ে অবৈধ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া বাকি অবৈধ নির্মাণ ভেঙে ফেলা হবে। চাঁচল পঞ্চায়েত থেকে একশ দিনের প্রকল্পে মরা মহানন্দা নদীটিকে সংস্কার করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।’