তিন ম্যাচ নির্বাসিত সাকিব, জরিমানা ৫ লাখ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : প্রত্যাশিতভাবেই বড়ো শাস্তি পেলেন সাকিব আল হাসান। আজ সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের দীর্ঘ বৈঠকের শেষে সাকিবকে ৫ লাখ টাকা জরিমানার পাশে তিন ম্যাচের জন্য নির্বাসিত করা হয়েছে। সাকিবের এই নির্বাসন শুধুমাত্র ঘরোয়া ক্রিকেটের জন্য। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট কমিটির প্রধান আজ এই শাস্তির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। বিসিবির দেওয়া শাস্তি সাকিব মেনে নিয়েছেন বলে খবর।

প্রথমে স্টাম্পে লাথি মারা। পরে স্টাম্প তুলে মাটিতে ফেলে দেওয়া। আম্পায়ারের সঙ্গে তর্ক করার পাশে আবাহনীর কোচের সঙ্গে কার্যত মারামারিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন প্রাক্তন বাংলাদেশ অধিনায়ক। পরে তিনি তাঁর ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছিলেন। কিন্তু তার আগে যে কাণ্ড তিনি ঘটিয়েছেন, তা হইচই ফেলে দেয় ক্রিকেট দুনিয়ায়। প্রশ্ন ওঠে, সাকিবের মতো একজন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার কীভাবে এমন কাজ করলেন। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে আবাহনী বনাম মহমেডানের ম্যাচ নিয়ে দুনিয়ার সংবাদমাধ্যমে তীব্র প্রতিক্রিয়ার পর সাকিবের শাস্তি প্রায় নিশ্চিত ছিল। আজ দুপুরে ম্যাচ রেফারির পাঠানো শাস্তির চিঠি হাতে পান সাকিব।

- Advertisement -

যদিও এই ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলছেন সাকিব-পত্নী উম্মে-আল-হাসান। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছেন, অনেকদিন পর টিভিতে বলার মতো একটা ঘটনা ঘটেছে। সংবাদমাধ্যমের মতো আমিও উপভোগ করছি। যারা সত্যিটা জানেন ও প্রতিবাদ করতে পারেন, তাদের সমর্থন পেয়ে ভালো লাগছে। তবে এসবে আসল ঘটনা চাপা পড়ে যাচ্ছে। আম্পায়ারদের অদ্ভূত সিদ্ধান্ত থেকে বিতর্কের সূত্রপাত। আমার মনে হয়, সাকিবকে খলনায়ক দেখানোর জন্য ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে আম্পায়ারিংয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি সাকিবের আচরণেরও নিন্দা করেছেন বাংলাদেশের প্রাক্তনরা।