সেঞ্চুরি আর পাঁচ উইকেটের লক্ষ্যে সাকিব

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : একই ম্যাচে শতরান করার পাশে পাঁচ উইকেটও নিতে চান তিনি!

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এমন নজির বিরল। কিন্তু আসন্ন আইপিএলের আগে এমন লক্ষ্যকেই পাখির চোখ করেছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আগামী অক্টোবরে ভারতের মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে এভাবেই নিজেকে মেলে ধরতে চাইছেন প্রাক্তন বাংলাদেশি অধিনায়ক।

- Advertisement -

গতকালই কোয়ারান্টিন পর্ব শেষ হয়েছে। আজ থেকেই পুরোদমে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন তিনি। কেকেআর নেটে দীর্ঘসময় ব্যাট করেছেন। বলও করেছেন। পরে সন্ধ্যার দিকে টিম গোল্ড ও টিম পার্পেলের মধ্যে অনুশীলন ম্যাচে ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়ামে তিনি খেললেনও। আর তার মধ্যেই নিজের মনের ভাবনার কথাও জানিয়েছেন সাকিব। তাঁর কথায়, আইপিএল খেলার সুযোগ যখনই পেয়েছি, ক্রিকেটার হিসেবে নিজেকে সমৃদ্ধ করতে পেরেছি। আসন্ন আইপিএলে একই ম্যাচে শতরান ও পাঁচ উইকেটের নজির গড়তে চাই। জানি না আমার স্বপ্নপূরণ হবে কি না। কিন্তু প্রথম একাদশে সুযোগ এলে অবশ্যই এমন কিছুর চেষ্টা থাকবে আমার।

চেন্নাইয়ে হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ১১ এপ্রিল প্রথম ম্যাচ কেকেআরের। তার আগে আজ মুম্বইয়ে ডিওয়াই পাতিল স্টেডিয়ামে নিজেদের মধ্যে অনুশীলন ম্যাচে বল হাতে নজর কাড়লেন হরভজন সিং। দলের সহ অধিনায়ক দীনেশ কার্তিকও মুগ্ধ ভাজ্জির স্কিলে। নাইটদের সোশ্যাল দুনিয়ায় তিনি বলেন, হরভজন শেষ দুই বছর ক্রিকেট খেলেনি বলেই জানি। অথচ আমাদের অনুশীলনের শুরু থেকেই দারুণভাবে মানিয়ে নিয়েছে। আজ অনুশীলন ম্যাচে দুর্দান্ত বল করল। ওর মতো অভিজ্ঞ ও চ্যাম্পিয়ান ক্রিকেটারকে পেয়ে আমাদের দলের ভারসাম্য অনেক বেড়েছে। অনুশীলন ম্যাচে টিম গোল্ডের অধিনায়ক ছিলেন শুভমান গিল। আর টিম পার্পেলের নেতত্ব দিলেন বেন কাটিং। অনুশীলন ম্যাচে হরভজন ছাড়াও নজর কাড়েন তরুণ পেসার বেঙ্কটেশ আইয়ার।

আইপিএলের ইতিহাসে মুম্বই-চেন্নাই সবচেয়ে সফল দল। শাহরুখ খানের কেকেআরও খুব একটা পিছিয়ে নেই। ২০১২ ও ২০১৪, মোট দুই বারের চ্যাম্পিয়ান কেকেআর। অথচ শেষ কয়েক বছরে নাইটদের সময়টা ভালো যাচ্ছে না একেবারেই। দল হিসেবে সাফল্য আসছে না। শেষ মরশুমে দীনেশ কার্তিকের বদলে ইয়োন মরগ্যানকে অধিনায়ক করার পরও ব্যর্থ কেকেআর। নাইটদের সাফল্য কি এবার আসবে? জবাব দেবে সময়। তার আগে ডিকের কথায় আত্মবিশ্বাসের সুর। কার্তিক বলেন, আমাদের দলের ভারসাম্য দারুণ। প্রতিটা বিভাগে ব্যাক আপ রয়েছে। অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের মিশেলও ভালো হয়েছে এবার। সাফল্যের ব্যাপারে আমি আশাবাদী।