দোকানের তালা ভেঙে মদ সহ লক্ষাধিক টাকা চুরি

315
শামুকতলা বাজারের একটি মদের দোকানে চুরি

শামুকতলা: লকডাউনের মধ্যেই দোকানের তালা ভেঙে চুরির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে আলিপুরদুয়ার-২ ব্লকের শামুকতলায়। মঙ্গলবার রাতে শামুকতলা বাজারের একটি মদের দোকানে ঘটনাটি ঘটেছে। বিভিন্ন ব্রান্ডের মদের বোতল ছাড়াও নগদ ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা লুঠ করে চম্পট দিয়েছে দুষ্কৃতিরা। শুধু তাই নয়, প্রমাণ লোপাটের জন্য দোকান ঘরে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরা, হার্ডডিস্ক সবকিছুই হাপিস করে দিয়েছে চোরের দল। লকডাউন চলাকালীন এমন চুরির ঘটনায় রীতিমতো উদবিগ্ন এলাকার ব্যবসায়ী এবং বাসিন্দারা। দোকান মালিক অনিরুদ্ধ বিশ্বাস শামুকতলা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। থানার ওসি বিরাজ মুখোপাধ্যায় জানান, ‘খবর পেয়েছি। ঘটনার তদন্ত চলছে।’ স্থানীয়দের অনেকেই বলেন, করোনা পরিস্তিথিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের পরিবর্তে মদ চুরির ঘটনায় আমরা সত্যিই অবাক। ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে পারে এমন আশঙ্কা বাসিন্দাদের। তারা বলেন, ‘অসামাজিক কাজ যাতে এলাকায় মাথাচাড়া দিয়ে না উঠে, সেজন্য কড়া পদক্ষেপ করুক পুলিশ প্রশাসন।’

এব্যাপারে দোকান মালিক অনিরুদ্ধ বিশ্বাস বলেন, ‘লকডাউনের জেরে বন্ধ থাকার বেশকিছু দিন পর দোকান খুলেছিলাম। খোলার পর একদিন যেতে না যেতেই এমন চুরির ঘটনা ঘটল। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় দোকানে তালা মেরে বাড়ি চলে যাই। বুধবার সকালে দোকান খুলতে গিয়ে দেখি তালা ভাঙা, দরজা ভেজানো রয়েছে। ভেতরে ঢুকে দেখি অন্যান্য ৪টি দরজার তালাও ভাঙা। ক্যাশ বাক্স, লকার ভেঙে ফেলা হয়েছে। ঘরের জিনিসপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। মজুত রাখা মদের বোতল গায়েব। বিভিন্ন ব্রান্ড মিলিয়ে প্রায় ৫৭ হাজার টাকার মদ এবং নগদ ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা চুরি গেছে। দোকান ঘরের বিভিন্ন জায়গায় লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরা এবং হার্ডডিস্ক পর্যন্ত নিয়ে গেছে চোরের দল। শামুকতলা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি। আশা করছি পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত করে দুষ্কৃতিদের দ্রুত পাকড়াও করবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।’

- Advertisement -

বিষয়টি নিয়ে শামুকতলা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক মানিক দে বলেন, ‘এলাকায় চুরির ঘটনা কাম্য নয়। পুলিশ দ্রুত অপরাধীদের খুঁজে বের করে শাস্তি দিক।’ একই কথা বলেন যশোডাঙ্গা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক মলয় দেবনাথ। তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ‘আর্থিক মন্দার বাজারে এলাকায় ফের অসামাজিক কার্যকলাপ মাথাচারা দিয়ে উঠেছে। অতীতে বহু চুরির ঘটনার কিনারা আজও হয়নি। দ্রুত ব্যবস্থা নিক পুলিশ৷’