চব্বিশের নির্বাচন নিয়ে বৈঠক তৃতীয় ফ্রন্টের, উপস্থিত ৮ দল

136
সংগৃহীত

পোর্টাল ডেস্ক: ১৫টি রাজনৈতিক দলকে নিজের বাড়িতে বৈঠকের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার । কিন্তু সেই বৈঠকে মাত্র  ৮টি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা হাজির হয়েছিলেন।   তৃণমূল কংগ্রেসও ছিল সেই বৈঠকে। চব্বিশের  নির্বাচনকে পাখির চোখ করে তৃতীয় ফ্রন্টকে আরও বেশি শক্তিশালী করতেই এই বৈঠক ডাকা হয়। এই বৈঠকের কারনে যথারীতি জল্পনা ছিল রাজনৈতিক মহলে। যদিও শরদ পাওয়ার নিজে দাবি করেছেন তেমন রাজনৈতিক কিছু নাকি এই বৈঠকে আলোচনা হয়নি।  যদিও দীর্ঘ আড়াই ঘন্টা ধরে চলে এই বৈঠক।

একুশের নির্বাচনে  বাংলায় বিজেপির ভরাডুবি  জাতীয় রাজনৈতিক মহলে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল। পিকের সমীকরণের সাফল্যে বিজেপি যেভাবে বিপর্যয়ের সম্মুখীন  হয়েছে তাতে অন্যরাজ্যের অবিজেপি দলগুলিও শক্তি পেয়েছিল। তারপরেই ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে দুই দফায় বৈঠক করেন এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার। চব্বিশের লোকসভায় প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলের সঙ্গে কাজ করবে। তার মধ্যে আবার এনসিপি সুপ্রিমোর সঙ্গে বৈঠক নতুন করে জল্পনা বাড়িয়েছিল তৃতীয় ফ্রন্টের।

- Advertisement -

মঙ্গলবার বিকেলে দিল্লিতে শরদের বাসভবনে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। সেই আমন্ত্রণপত্র আরজেডি, ন্যাশনাল কনফারেন্স, পিডিপি, তৃণমূল কংগ্রেস, কংগ্রেস, আপ সকলকেই পাঠানো  হয়েছিল। কংগ্রেস নেতা কপিল সিবলকে আলাদা করে আমন্ত্রণ পাঠান শরদ পাওয়ার।

তবে ১৫টি রাজনৈতিক দল বৈঠকে সামিল না হলেও ৮টি রাজনৈিতক দল শরদ পাওয়ারের বাসভবনে বৈঠকে সামিল হয়। তারমধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস, আপ এবং বামেরাও উপস্থিত ছিল। তৃণমূলের পক্ষ থেকে ছিলেন যশবন্ত সিনহা। তিনি জানিয়েছেন সাম্প্রতিক ইস্যু গুলি নিয়েই আলোচনা হয়েছে বৈঠকে।  তবে এদিনের বৈঠক  একেবারেই কোনও রাজনৈতিক বৈঠক ছিল না বলেই বারবার দাবি করেছেন শরদ পাওয়ার।