রেজ্জাকের মান ভাঙাতে আসরে শওকত

130

কলকাতা: রাজ্যের মন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও শারীরিক অসুস্থতার কারণে এবার দল তাঁকে টিকিট দেয়নি। টিকিট না পাওয়ায় যতটা হতাশ হয়েছিলেন, দলের কেউ খোঁজ না নেওয়ায় তার চেয়ে বেশি অভিমান হয়েছিল সিপিএমের প্রাক্তন এই দাপুটে নেতার। অভিমান এই পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে, ৭৭-এর রেজ্জাক প্রকাশ্যেই বলেছিলেন, তৃণমূলে এই কালচার নেই। এরপরই রবিবার সকালে রেজ্জাকের মান ভাঙাতে আসরে নামেন একদা তাঁর ছায়াসঙ্গী শওকত মোল্লা।

একসময় যখন রেজ্জাক দক্ষিণ ২৪ পরগণার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করতেন, তখন তাঁর ডানহাত ছিলেন শওকত। কিন্তু ২০১১-র পালাবদলের পর শওকত তৃণমূলে যোগ দেন। তার কিছুদিন পর যোগ দেন রেজ্জাক মোল্লাও। ২০১৬ সালে ক্যানিং পূর্ব থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ শওকত মোল্লা এবং ভাঙড় থেকে রেজ্জাক মোল্লা তৃণমূলের টিকিটে জিতে বিধায়ক হন। নির্বাচনের বেশ কিছুদিন আগে থেকেই রেজ্জাক অসুস্থ হয়ে নিউটাউনে ছেলের বাড়িতে। দিন দুয়েক আগে বাড়িতে ফিরে রেজ্জাক বলেছিলেন, ‘তৃণমূল নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত। আমার খোঁজ নেবে কে?‘

- Advertisement -

সেই মান ভাঙাতেই যেন রবিবার সকালে পূর্বসূরির বাড়িতে যান শওকত। শওকত বলেন, ‘ব্যক্তিগত সম্পর্কের সূত্রে এসেছি। যেহেতু আমিও বিধায়ক তাই রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা থেকেই যায়।‘