কৃষি বিলের বিরোধিতায় রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ শিরোমণি অকালি দল

371

অনলাইন ডেস্ক: কৃষি বিলের বিরোধিতায় রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হতে চলেছে শিরোমণি অকালি দল। রবিবার তুমুল বিক্ষোভ উপেক্ষা করে রাজ্যসভায় পাস হয়েছে নতুন দুটি কৃষি বিল। ‘কৃষিপণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত বিল দু’টি পেশ হয় গতকাল। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের অনুমোদন পেলেই তা আইনে পরিণত হবে। তার আগে এবার রাষ্ট্রপতির কাছে দরবার করতে চলেছে শিরোমণি অকালি দল।

দলের প্রধান সুখবীর বাদলের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সোমবার বিকেল ৪টে ৩০-এ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করবে বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবারই কৃষি বিলের বিরোধিতায় শিরোমণি অকালি দলের সাংসদ হরসিমরত কউর বাদল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা থেকে পদত্যাগ করেন। দেশজুড়ে কয়েক সপ্তাহ ধরে এই বিলগুলির প্রতিবাদে পথে নেমেছেন কৃষকরা। বিরোধী দলগুলিও নিশানা করেছে মোদি সরকারকে। তবে বিজেপি অবশ্য দাবি করেছে, বিলগুলি কৃষিক্ষেত্রে বড় আকারের সংস্কার নিয়ে আসবে।

- Advertisement -

রবিবার সকাল থেকেই কৃষি বিলের বিরোধিতায় উত্তাল হয়ে ওঠে সংসদের উচ্চ কক্ষ। কংগ্রেসের পাশাপাশি বিভিন্ন বিরোধী দলও ওই বিলের বিরোধিতা করে। এনডিএ-এর শরিক অকালি দলও বিলের বিরুদ্ধে প্রবলভাবে সরব হয়। আন্দোলনকারী কৃষক এবং বিরোধী দলগুলির অভিযোগ, এই বিলগুলিতে কৃষকদের স্বার্থ উপেক্ষা করে বড় ব্যবসায়ী এবং কর্পোরেট সংস্থাগুলিকে একতরফা ভাবে ফসলের দাম নির্ধারণ এবং মজুতদারির অধিকার দেওয়া হয়েছে। তবে নরেন্দ্র মোদির দাবি, বিরোধীরা এই বিলগুলি নিয়ে কৃষকদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।

রবিবার হরিয়ানার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদে শামিল হয় কৃষকরা। পঞ্জাবে কৃষি বিলের প্রতিবাদে যুব কংগ্রেস বিক্ষোভ দেখায়। ২৫ সেপ্টেম্বর বনধ ডাকার কথাও বলা হয়। এছাড়া পঞ্জাবের ৭টি সংগঠন ২৪ ও ২৬ সেপ্টেম্বর ‘রেল রোকো’ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।