অসুস্থ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, ভর্তি হাসপাতালে

380

কলকাতা: আচমকাই অসুস্থ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। শনিবার জিম করতে গিয়ে হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পড়েন মহারাজ। বর্তমানে সৌরভকে উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর মাইনর হার্ট অ্যাটাক হয়েছে বলেই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। হাসপাতালেই রয়েছেন স্ত্রী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়। পরিবার সূত্রে খবর, জিম করার সময় বুকে ব্যথা অনুভব করেন সৌরভ। এরপরই ব্ল্যাকআউট হয়ে যান তিনি। বুক এবং পিঠে ব্যথা করছিল তাঁর। তড়িঘড়ি তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে এমার্জেন্সি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

অন্যদিকে, উডল্যান্ডস হাসপাতালের সিইও রূপালি বসু জানান, শনিবার সকালে বাড়িতে জিম করার সময় বুকে অস্বস্তি বোধ করছিলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। দুপুর ১টা নাগাদ তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এখন স্থিতিশীল তিনি। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মহারাজের পর্যবেক্ষণে তড়িঘড়ি তৈরি করা হয় পাঁচ সদস্যর মেডিকেল বোর্ড। তাঁর ‘প্রাইমারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি’ চলছে।

- Advertisement -

পাশাপাশি, ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়কের অসুস্থতার খবরে উদ্বেগ বেড়েছে ভক্তদের মধ্যে। মহারাজের দ্রুত সুস্থতা কামনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় উপচে পড়ছে প্রার্থনা বার্তা। টুইটারে তাঁর আরোগ্য কামনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়, কৈলাস বিজয়বর্গীয় থেকে বিরাট কোহলি, বীরেন্দ্র শেহওয়াগ, শিখর ধাওয়ানরা।

এদিন রাজ্যের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর তাঁর মাইক্রো ব্লগিং সাইটে লেখেন, ‘সৌরভের দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। ওঁর হার্ট অ্যাটাক হয়েছে। উডল্যান্ড হাসপাতালের সিইও-এর সাথে কথা বলেছি। এখন বর্তমানে ঠিক আছে।’

এদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর মাইক্রো ব্লগিং সাইটে লেখেন, ‘সৌরভের মৃদু হার্ট অ্যাটাকের কথা শুনে খুবই খারাপ লাগছে। সৌরভ এখন হাসপাতালেই আছে। ওঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করি। ওঁর পরিবারের পাশে আছি।’

এদিন সৌরভের মেডিক্যাল বুলেটিন পর্যালোচনা করেন প্রবীণ কার্ডিওলজিস্ট রবীন চক্রবর্তী। তিনি জানান, শরীরচর্চা করার সময় হৃৎপিণ্ডের নীচের অংশে রক্ত সঞ্চালন প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়েছে। চলতি ভাষায় যা হার্ট অ্যাটাকে নামে পরিচিত। এখন রাইট করোনারি আর্টারি নাকি লেফট সার্কামফ্লেক্স করোনারি আক্রান্ত হয়েছে তা অ্যাঞ্জিওগ্রাফি করে জানা যাবে। যেহেতু হার্ট অ্যাটাক তাই অ্যাঞ্জিওগ্রাফি চলাকালীনই প্রাইমারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করতে হচ্ছে। তাতে হৃৎপিণ্ডের যে সকল মাংসপেশী দুর্বল হয়েছে তা দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে। তবে চিন্তার কোন‌ও কারণ নেই। মাসখানেকের মধ্যে তিনি পুরো সুস্থ হয়ে যাবেন।