বীরাপ্পন কন্যা এখন বিজেপি যুবনেত্রী

অনলাইন ডেস্ক: চন্দন পাচারকারী কুখ্যাত দস্যু বীরাপ্পনের মেয়েকে দলে বড় পদ দিয়ে তামিলনাড়ুর রাজনীতিতে নিজেদের ভিত শক্ত করার কাজ শুরু করল বিজেপি। সম্প্রতি বীরাপ্পানের কন্যা বিদ্যা রানীকে তামিলনাড়ু প্রদেশ যুব বিজেপির সহ-সভাপতি হিসাবে নিয়োগ করেছে দল।

এবছর ফেব্রুয়ারীতে কৃষ্ণগিরিতে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)-তে যোগ দেন বিদ্যা রানী। ২৯ বছর বয়সী বিদ্যা আইনে স্নাতক। ২০২১-এ তামিলনাড়ুতে বিধানসভা নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগে দলের রাজ্য সভাপতি এল মুরুগানের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ দলকে শক্তিশালী করে তোলা। সেকারণেই এই নিয়োগ বলে মনে করা হচ্ছে।

- Advertisement -

বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সময় বিদ্যা রানী বলেছিলেন, “আমি জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে দরিদ্র ও বঞ্চিতদের জন্য কাজ করতে চাই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পরিকল্পনা জনগণের জন্য তৈরি এবং আমি এই সুযোগ সুবিধা জনগণের দুয়ারে পৌঁছে দিতে চাই।”

এদিকে সহ-সভাপতি দায়িত্ব পাওয়ার পর বিদ্যা বলেছেন, তাঁর মূল লক্ষ্য সমাজসেবা। বাবার প্রসঙ্গে বিদ্যা বলেন, ৬-৭ বছর বয়সে স্কুলের ছুটিতে দাদার গ্রামে বেড়াতে গিয়েছিলাম। সেসময় বাবার সঙ্গে দেখা হয়েছিল।বিদ্যা জানিয়েছেন, বাবা তাঁর সঙ্গে খেলেছিলেন ও কয়েক মিনিট কথাও হয়েছিল তাঁদের।

বাবা তাঁকে ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করার কথা বলেছিলেন। বাবার সেই কথাই তাঁকে সমাজসেবার কাজে যোগ দিতে প্রেরণা যুগিয়েছিল বলে জানান বিদ্যা। বিদ্যা শিশুদের জন্য একটি স্কুলও চালান। তাঁর মা মুথুলক্ষ্মী এনডিএ-র সহযোগী সংগঠনের একটি শাখা তমিজাগা বজভুরিমাই কাচ্চির (টিভিকে)-এর সঙ্গে যুক্ত।

প্রসঙ্গত, পুলিশ ও বন দপ্তরের কর্মকর্তা সহ দেড় শতাধিক মানুষের মৃত্যু এবং শতাধিক হাতি হত্যার ঘটনায় বীরাপ্পন জড়িত ছিল। চন্দন পাচারের পাশাপাশি হাতির দাঁত পাচারের ঘটনায় যুক্ত ছিল বীরাপ্পন। ২০০৪ সালে পুলিশি এনকাউন্টারে বীরাপ্পন নিহত হয়। ২০০০ সালে কন্নড় ছবির সুপারস্টার রাজকুমার এবং ২০০২ সালে কর্ণাটকের প্রাক্তন মন্ত্রী এইচ নাগপ্পার অপহরণের ঘটনায় যুক্ত ছিল বীরাপ্পন।