স্মার্ট  জুয়ায় বুঁদ শিশুবাড়ির উঠতি প্রজন্ম 

596

রাঙ্গালিবাজনা– স্মার্ট জুয়ায় বুঁদ হয়ে রয়েছে আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লকের শিশুবাড়ি এলাকার উঠতি প্রজন্ম। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলেই ঝান্ডিমুন্ডির আসর বসাচ্ছে তারা। দু-চারজন এক জায়গায় হলেই পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে স্মার্ট জুয়ায় ডুবে যাচ্ছে এলাকার যুবক থেকে শুরু করে কিশোরদের একটি অংশ। মাদারিহাট থানা সূত্রে জানানো হয়েছে, শিশুবাড়ি এলাকায় জুয়ার বিরুদ্ধে লাগাতার অভিযান চলছে।

পুলিশ অবশ্য শিশুবাড়ি এলাকায় প্রায়ই যে জুয়ার বিরুদ্ধে হানা দেয়, তা অবশ্য অস্বীকার করছেন না অনেকেই। তবে, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে জুয়াড়িরা  খেলার কায়দা পালটানোয় অভিযানে গিয়ে পুলিশকে বেশিরভাগ সময়ই খালি হাতে ফিরতে হচ্ছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তিন তাসা, লাকি সেভেন, ঝান্ডিমুন্ডির মতো খেলাগুলি পুরোনো পদ্ধতিতে খেলতে গেলে বেশ কিছু জিনিসপত্র লাগে। পুলিশ হানা দিলে জিনিসপত্র ফেলেই পালাতে হয়। তাই, নব প্রজন্ম আপন করে নিয়েছে স্মার্ট জুয়াকেই। পুলিশ হানা দিলে  মোবাইল ফোনটি পকেটে পুরে রাখলেই হল। ফলে, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে হানা দিয়েও  হতাশ হয়ে ফিরছে। তবে, শিশুবাড়ির বাসিন্দাদের অনেকেরই অভিযোগ, পুলিশের হানার খবর বিশেষ সোর্স মারফৎ আগেভাগেই পেয়ে যায় জুয়াড়িরা। পুলিশ অবশ্য ওই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে।

- Advertisement -

পুলিশের ক্ষোভ অন্য জায়গায়। এর আগে একাধিক পুলিশকর্মীর  তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে জানা গিয়েছে, জুয়াড়িদের  গ্রেফতার করে থানায় পৌঁছানোর আগেই জুয়াড়িদের বাঁচাতে পুলিশের কাছে যায় নেতাদের ফোন। এমনকি, থানাতেও জুয়াড়িদের লোকজন  হাজির হন নেতার সুপারিশ নিয়ে। স্বাভাবিকভাবেই,  জুয়াড়িদের ঘাঁটাতে চায় না পুলিশও, অভিযোগ অনেকেরই। ফলে, অনেক সময়ই দেখা যায়, শিশুবাড়িতে জুয়ার সরঞ্জাম বাজেয়াপ্ত হলেও পুলিশের ধরাছোঁয়ার বাইরেই রয়ে গিয়েছে  জুয়াড়িরা।

‌স্থানীয়দের কেউ কেউ জানান, পুলিশ মাঝে মাঝে হানা দেওয়ায় প্রতি বৃহস্পতিবার জুয়ার আসর কিছুটা হলেও আগের তুলনায় কমেছে। পুরোনো মডেলের জুয়ার আসর বসলেও ইদানীং হাট থেকে কিছুটা দূরে বসে। কারণ, হাটে জুয়ার আসর নিয়ে এর আগে জুয়াড়িদের সঙ্গে স্থানীয় দু-একজন বাসিন্দার ঝামেলাও হয়েছে। এছাড়া , পুরোনো মডেলের জুয়ার প্রতি বর্তমান প্রজন্মের অনেকেরই টান কম। তারা বেছে নিচ্ছে মোবাইল ফোনের জুয়াকেই । বিশেষ করে,  সন্ধ্যা হলে আড্ডার ছলে যত্রতত্র বসছে মোবাইল জুয়ার আসর।

শিশুবাড়ির খিদিরপুর রহমানিয়া হা‌ই মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তথা শিশুবাড়ি নাগরিক মঞ্চের সহসভাপতি নূর আলম আহমেদ বলেন, ‘সন্ধ্যে হলেই শিশুবাড়ির  হাট শেড, ট্যাক্সি স্ট্যান্ড সহ বিভিন্ন জায়গায় জুয়ার আসর বসছে। আমি প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের চেষ্টা করে অনেকের ‌চক্ষুশূল হয়েছি। প্রতিবাদ করলে স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতা মেলে না।’ মাদারিহাট থানার ওসি অনির্বাণ মজুমদার বলেন, ‘শিশুবাড়িতে জুয়ার আসরের বিরুদ্ধে লাগাতার  অভিযান হচ্ছে। পুজোর আগে টহলদারি আরও বাড়ানো হবে।’

ছবি – শিশুবাড়িতে মোবাইল জুয়ার আসর।

তথ্য ও ছবি – মোস্তাক মোরশেদ হোসেন