আমেঠি, ২৬ মেঃ মাত্র তিনদিন আগে কংগ্রেসের গড় আমেঠিতে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে বিজেপি। খোদ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধিকে হারিয়ে দিয়েছেন বিজেপি প্রার্থী স্মৃতি ইরানি। কিন্তু জয়ের রেশ মেলানোর আগেই খুন হয়ে গেলেন স্মৃতির অন্যতম সহযোগী সুরেন্দ্র সিং। শনিবার শেষ রাতে বিজেপি নেতা সুরেন্দ্রকে নিজের বাড়িতেই গুলি করে কয়েকজন দুষ্কৃতী। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও বাঁচানো যায়নি তাঁকে। ঘটনায় কংগ্রেসের দিকে আঙুল তুলেছে বিজেপি।

স্মৃতি ইরানির জয়ের পিছনে বড়ো ভূমিকা ছিল বারাউলিয়া গ্রামের প্রাক্তন সরপঞ্চ সুরেন্দ্র সিংয়ের। ওই গ্রামেই তাঁর বাড়ি। পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছে, শনিবার সারা রাত তিনি স্থানীয় একটি মন্দিরে বিজেপির বিজয় উত্সব পালন করছিলেন। রাত তিনটে নাগাদ বাড়ি ফিরছিলেন সুরেন্দ্র। সেই সময় বাড়ির সামনেই তাঁকে গুলি করা হয়। উল্লেখ্য, লোকসভা ভোটের প্রচারের সময় খবরের শিরোনামে এসেছিল বারউলিয়া গ্রাম। সেখানে প্রচারে এসে প্রিয়াঙ্কা গান্ধি অভিযোগ করেছিলেন, রাহুল গান্ধিকে অপমান করার জন্য গ্রামবাসীদের মধ্যে জুতো বিলি করছেন স্মৃতি ইরানি। স্মৃতির হয়ে জুতো বিলির দায়িত্বে যারা ছিলেন, তাদের মধ্যে অন্যতম এই সুরেন্দ্র সিং। আমেঠির পুলিশ সুপার রাজেশ কুমার জানিয়েছেন, অজ্ঞাতপরিচয় আততায়ীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এখনও পর্যন্ত দু’জনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, রাজনীতি নয়, পুরনো কোনো শত্রুতার জেরে খুন হতে হয়েছে সুরেন্দ্রকে। তবে সব সম্ভাবনাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে।