বারবিশা, ৬ জুনঃ অসম-বাংলা সীমান্তের রায়ডাক নদীতে অভিযান চালিয়ে চোরাই সেগুন গাছের লগ উদ্ধার করল বনদপ্তরের কর্মীরা। বৃহস্পতিবার ২ নম্বর রায়ডাক নদীতে তল্লাশি চালিয়ে ২৫টি চোরাই সেগুন গাছের লগ উদ্ধার করে ভল্কা রেঞ্জের বনকর্মীরা।

বুধবার রাতে সেগুন গাছের লগগুলি রায়ডাক নদী পথে বাইরে পাচারের চেষ্টা করছিল পাচারকারীরা। কিন্তু বনকর্মীদের উপস্থিতি টের পেয়ে তড়িঘড়ি বালি-বজরির বস্তা এবং বোল্ডার চাপা দিয়ে চালি সমেত সেগুন গাছের লগগুলি মাঝ নদীতে লুকিয়ে রাখে তারা। চালি সমেত চোরাই সেগুন গাছের লগগুলি বারবিশা লাগোয়া ২ নং রায়ডাক সড়ক সেতু এবং রেল সেতুর মধ্যবর্তী অংশে নদীর মাঝখানে জলের গভীরে লুকিয়ে রাখা হয়েছে বলে খবর পান বনকর্মীরা। এদিন সকালে তল্লাশি চালিয়ে চোরাই সেগুন গাছের লগগুলি উদ্ধার করে ভল্কা রেঞ্জ অফিসে আনা হয়। স্থানীয়রা জানান, উদ্ধার কাজের সময় কাঠ পাচারকারীরা বনকর্মীদের বাধা দেয়। খবর পেয়ে ভল্কা রেঞ্জ অফিস থেকে আরও বনকর্মী ঘটনাস্থলে পৌঁছান। ভল্কা রেঞ্জ অফিস সূত্রে জানা গিয়েছে, উদ্ধারকৃত কাঠের পরিমাণ ১০০ সিএফটি-র কিছু বেশি হবে। আনুমানিক বাজার মূল্য দু’লক্ষ টাকা। এই বিষয়ে ভল্কা রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার চিরঞ্জিব সাহা জানান, টানা দু’দিনের তল্লাশি অভিযান চালিয়ে এই সাফল্য মিলেছে। এই ধরনের অভিযান লাগাতার চলবে।