দলমোর বনাঞ্চলে সক্রিয় মাফিয়ারা, কাটা হচ্ছে গাছ

296

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, বীরপাড়া : কাঠ মাফিয়াদের দৌরাত্ম্যে বন দপ্তরের জলপাইগুড়ি ডিভিশনের দলগাঁও রেঞ্জের অন্তর্গত দলমোর বনাঞ্চল সংকটে পড়েছে। সূত্রের খবর, ওই বনের মূল্যবান সেগুন গাছগুলি কেটে পাচার করতে কাঠ মাফিয়াদের একটি বড় চক্র সক্রিয় হয়েছে। কাঠ পাচারচক্রের সক্রিয়তার বিষয়টি বন দপ্তরও উড়িয়ে দেয়নি। দপ্তর সূত্রের খবর, দলমোরের জঙ্গল থেকে সেগুন গাছগুলি কেটে বিভিন্ন জায়গায় পাচারের চেষ্টা করা হচ্ছে। চক্রের অন্যতম শিকড় ফালাকাটা ব্লকের জটেশ্বর সংলগ্ন ধুলাগাঁও অঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। বন দপ্তরের দলগাঁও রেঞ্জ সূত্রে খবর, মাসখানেকের মধ্যে পাচারের উদ্দেশ্যে ওই বন থেকে বেআইনিভাবে কাটা কয়েক লক্ষ টাকা মূল্যের সেগুন গাছের গুঁড়ি, তক্তা, বাটাম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। অন্যদিকে, কাঠ মাফিয়াদের চক্রটিও চুপচাপ বসে নেই। বরং পথেঘাটে জনসমাগম কমে যাওয়ায় বীরপাড়া এলাকার কাঠ মাফিয়াচক্রের পান্ডারা অনেকটাই নিশ্চিন্ত  হতে পেরেছে। সোমবার রাত ৮টা নাগাদ দলমোর থেকে কাটা সেগুন গাছের কয়েকটি গুঁড়ি যাত্রীবাহী ছোট গাড়িতে চাপিয়ে পাচারের সময় পাগলি নদী সংলগ্ন এলাকায় দলগাঁও রেঞ্জের কর্মীরা কাঠ সহ গাড়িটিকে বাজেয়াপ্ত করেন। দলগাঁওয়ের রেঞ্জার দোরজি শেরপা বলেন, কাঠের গুঁড়িগুলি গোপালপুর চা বাগানের ভিতর দিয়ে শিশুবাড়ি হয়ে ধুলাগাঁও অঞ্চলে পাচার করা হচ্ছিল। বনকর্মীরা তাড়া করতেই পাচারকারীরা গাড়িটি ফেলে চম্পট দেয়। বাজেয়াপ্ত করা কাঠের আনুমানিক মূল্য প্রায় এক লক্ষ টাকা। গাড়িটিকেও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

বন দপ্তর সূত্রে খবর, কাঠ পাচারের জন্য মাফিয়ারা বেশ কিছুদিন ধরেই যাত্রীবাহী ছোট গাড়ি ব্যবহার করছে। ভেতরে সিট খুলে ফেলে তাতে গাছের গুঁড়ি তোলা হচ্ছে। সোমবারও একই কায়দায় গুঁড়িগুলি পাচার করা হচ্ছিল। এছাড়া অনেক সময়ই কাঠ পাচারে নম্বরপ্লেটবিহীন ছোট গাড়ি ব্যবহার করা হচ্ছে। ওই এলাকা থেকে বীরপাড়ার ওপর দিয়ে কাঠ পাচারের সময় বনকর্মীরা বেশ কয়েকটি নম্বরপ্লেটবিহীন ছোট গাড়ি বমাল বাজেয়াপ্ত করেছেন।

- Advertisement -

কয়েক বছর ধরে গোটা বীরপাড়া এলাকা কাঠ পাচারকারীদের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে বলে অভিযোগ। ৩০ মার্চ বীরপাড়া থানার পুলিশ ও দলগাঁও রেঞ্জের বনকর্মীরা দলমোর ৩ নম্বর গারো বস্তিতে হানা দিয়ে  প্রায় দুলক্ষ টাকা মূল্যের সেগুন গাছের গুঁড়ি বাজেয়াপ্ত করেন। ২১ মার্চ দলমোর ৪ নম্বর বস্তিতে দুটি পৃথক অভিযান চালিয়ে  বীরপাড়া থানার  পুলিশ ও বনকর্মীরা প্রায় সাড়ে চার লক্ষ টাকা মূল্যের ১৩৯ সিএফটি সেগুন কাঠ বাজেয়াপ্ত করেন। প্রতিটি ক্ষেত্রেই দলমোর বনাঞ্চল থেকে গাছ কাটা হয়েছিল। ২ মার্চ ভোরে হাতি তাড়াতে টহলরত বানারহাট রেঞ্জের বনকর্মীরা দলগাঁও রেঞ্জের বান্দাপানি চা বাগান এলাকায় একটি  মালবাহী ছোট গাড়ি সহ প্রায় দেড় লক্ষ টাকার সেগুন কাঠ বাজেয়াপ্ত করেন। কাঠ পাচারচক্র ওই এলাকার বান্দাপানি, রেতি বনাঞ্চলগুলিতেও মৌরসিপাট্টা গেড়েছে। বীরপাড়া-মাকড়াপাড়া রোডের পাশেই দলমোর বনাঞ্চলের বৃক্ষচ্ছেদনের নজির চোখে পড়ে। তবে মাফিয়াদের দাপটে বনকর্মীরাও ওই এলাকায় পুলিশ ছাড়া অভিয়ান চালাতে সাহস পান না। দলগাঁওয়ে রেঞ্জার বলেন, কাঠ পাচার রুখতে  লাগাতার অভিযান চালানো হচ্ছে। দলমোর বনাঞ্চলের উপর বিশেষ নজরও দেওয়া হচ্ছে।