জমি বিবাদের জেরে বাবার হাতে খুন ছেলে

330

মুর্শিদাবাদ: জমি নিয়ে বিবাদের জেরে বাবার হাতে খুন হল ছেলে।  ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সকালে মুর্শিদাবাদের রাণীনগর থানার চর-দুর্গাপুর গ্রামে। পুলিশ ইতিমধ্যে অভিযুক্ত বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনায় জড়িত আরও তিন অভিযুক্ত বর্তমানে পলাতক।

পুলিশ সূত্রের খবর, স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন তাঁর স্ত্রী। মৃতের নাম বিকাশ মন্ডল(৩৫)। পেশায় চাষী। বিকাশের সাথে তাঁর বাবা গনেশ এবং সৎ মা সুমিত্রা মন্ডল ও সৎ ভাই বুদ্ধু মন্ডলের দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিবাদ চলছিল। আজ সকালে সেই বিবাদ চরমে ওঠে। অভিযোগ সেই সময় গনেশ, সুমিত্রা, বুদ্ধু এবং তাদের এক প্রতিবেশী রেখা, বিকাশকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে শুরু করে। বিকাশের স্ত্রী এই ঘটনা দেখতে পেয়ে নিজের স্বামীকে বাঁচাতে গেলে অভিযুক্তরা তাকেও বাঁশ দিয়ে মারধর করে।

- Advertisement -

গীতা বলেন, প্রায় ২৮ বছর আগে আমার শ্বাশুড়ির মৃত্যু হয়। তারপর আমার শ্বশুর গনেশ মন্ডল সুমিত্রাকে বিয়ে করেন। দীর্ঘদিন ধরে আমার স্বামী তাঁর মায়ের কাছ থেকে পাওয়া জমিতে চাষবাস করে আসছেন।

তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি আমার শ্বশুর এবং তাঁর দ্বিতীয় পক্ষের সন্তান, বুদ্ধু, আমার স্বামীকে সেই জমি থেকে উৎখাতের পরিকল্পনা শুরু করে। তারা আমার স্বামীকে ওই জমিতে চাষবাসে বাঁধা দিত। বুধবার সকালে আমি এবং আমার স্বামী নিজেদের জমি থেকে ধান কেটে ফিরছিলাম। হঠাৎই আমার শ্বশুর আমাদের এক প্রতিবেশী রেখার বাড়ি থেকে বার হয়ে আমাদের সাথে ঝগড়া শুরু করেন।‘

গীতা অভিযোগ করেন, ‘ঝগড়া চলবার সময় আমরা কিছু বুঝে ওঠবার আগে বুদ্ধু ও সুমিত্রা আমার স্বামীর ওপর একটা হাঁসুয়া নিয়ে ঝাঁপিয়ে পরে। আমি আমার স্বামীকে বাঁচাতে গেলে গনেশ এবং তাঁর দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী এবং ছেলে আমাকে বাঁশ দিয়ে হামলা করে। এরপর আমি মাটিতে পরে গেলে গনেশ হাঁসুয়া দিয়ে কুপিয়ে বিকাশকে আমার চোখের সামনে খুন করে।‘

ঘটনার খবর পেয়ে রাণীনগর থানা থেকে বিশাল পুলিশ বাহিনী গ্রামে যায়। সেখান থেকে তাঁরা গণেশকে গ্রেপ্তার করে। কিন্তু বাকি অভিযুক্তরা ঘটনাস্থল থেকে পালাতে সক্ষম হয়। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজে পাঠিয়েছে।