কার্সিয়াং, ১২ ফেব্রুয়ারিঃ আবার প্রাণ ফিরে পেতে চলেছে ঐতিহ্যবাহী সোনাদা ও গয়াবাড়ি স্টেশন। ইউনেসকোর ছাড়পত্র হাতে পেয়েই গয়াবাড়ি, সোনাদা স্টেশন সংস্কারে টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু করেছে দার্জিলিং হিমালয়ান রেলওয়ে (ডিএইচআর)। চলতি মাসেই টেন্ডার হয়েছে বলে ডিএইচআর সূত্রে জানা গিয়েছে। টেন্ডার শেষ হলেই সোনাদা, গয়াবাড়ি স্টেশন সংস্কারের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন ডিএইচআর কর্তারা। প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের জুন মাসে গোর্খাল্যান্ড আন্দোলনকে কেন্দ্র করে পাহাড়ে অশান্তি ছড়ায়। ওই সময় গোর্খাল্যান্ড আন্দোলনের আঁচ এসে পরে পাহাড়ের দুই ঐতিহ্যবাহী স্টেশনে। জ্বালিয়ে দেওয়া হয় গয়াবাড়ি ও সোনাদা স্টেশন।

অন্যদিকে, পাহাড়ের তিনটি এবং সমতলের দুটি ঐতিহ্যবাহী টয়ট্রেন স্টেশন সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় রেল। দার্জিলিং, ঘুম, কার্সিয়াং, সুকনা এবং শিলিগুড়ি জংশনের ন্যারোগেজ স্টেশনকে সাজানো হবে বলে জানা গিয়েছে। দার্জিলিং স্টেশন থেকে শুরু হবে এই প্রক্রিয়া। রাতেরবেলাতেও স্টেশনগুলি যাতে পর্যটকদের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু থাকে তার জন্যে বিশেষ ধরনের আলোকসজ্জাও ব্যবহার করা হবে বলে ডিএইচআর সূত্রে জানা গিয়েছে।

দার্জিলিং হিমালয়ান রেলওয়ে ডিরেক্টর মিলনকুমার নার্জারি বলেন, ‘ইউনেসকোর ছাড়পত্র পাওয়ার পরেই আমরা গয়াবাড়ি, সোনাদা সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছি। টেন্ডার প্রক্রিয়া চলছে। আর ডিএইচআর মানথ্‌-এর অঙ্গ হিসেবে পাঁচটি স্টেশনকে আমরা সাজিয়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’