গোয়ালিনী থেকে বিচারক স্বপ্নের যাত্রায় সোনাল

215

জয়পুর : কথায় বলে, ঘুঁটেকুড়ুনি থেকে রাজকন্যা! রূপকথার গল্প নয়। বাস্তবেও আছেন রাজস্থানে। পরিশ্রম, অধ্যবসায় আর আইনি বেড়া টপকে উদয়পুরের গোয়ালার মেয়ে সোনাল শর্মা বিচারক হলেন। এক দায়রা আদালতের বিচারক নিযুক্ত হয়েছেন তিনি। তাঁগোয়ালিনী থেকে বিচারক স্বপ্নের যাত্রায় সোনাল| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal Indiaর ইচ্ছাশক্তি, পরিশ্রম নিংড়ে দেওয়ার মানসিকতা আর আইনি লড়াইয়ের সঙ্গে যোঝার মনোবল কুর্নিশযোগ্য, শিক্ষণীয় তো বটেই। গোপালক খেয়ালিলাল শর্মার মেয়ে সোনাল পড়াশোনায় বরাবরই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন। গোয়াল পরিষ্কার, গোবর কুড়োনো, বাড়ি বাড়ি দুধ বিলি করেও লেখাপড়ায় ফাঁকি দেননি কখনও। নিত্যদিনের কাজ তাঁর শুরু হয় ভোর চারটেয়। বই কেনার সামর্থ্য ছিল না। কিন্তু সেই ঘাটতি মিটিয়েছিল লাইব্রেরি। তবুও মেয়ে উচ্চশিক্ষার জন্য বাবাকে ধার করতে হয়েছিল। গোয়ালের এককোণে তেলের ক্যানকে টেবিল বানিয়ে চলত তাঁর সরস্বতীর আরাধনা। কলেজে যেতেন সাইকেলে। স্কুলে পৌঁছোনোর পর বেশিরভাগ সময় তাঁর চটিতে লেগে থাকত গোবর। গয়লা-দুহিতা কিন্তু তাঁর বাবার সম্পর্কে গর্বিত। অতি সাধারণ পরিবারের এই তরুণী আইন নিয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরে প্রথম হয়েছেন। ২০১৮ সালে রাজস্থান জুডিসিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায় বসেছিলেন। ফল প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৯-এর ডিসেম্বরে। নির্ধারিত নম্বর থেকে মাত্র ১ কম পেয়েছিলেন সোনাল। তাই নাম ছিল ওয়েটিং লিস্টে। এদিকে, উত্তীর্ণদের মধ্যে কয়েকজন চাকরিতে যোগ না দেওয়ায় সাতটি আসন শূন্য ছিল। সরকারের পক্ষ থেকে তখন ওয়েটিং লিস্ট থেকে নাম পাঠাতে বলা হয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে। তারপরও তাঁকে পেরোতে হয়েছে নানা আইনি জটিলতা। সোনাল সিলেক্টেড হয়ে রাজস্থান জুডিসিয়াল সার্ভিসে যোগ দিতে পারেননি। সেজন্য হাইকোর্টের দ্বারস্থ হতে হয়। রাজস্থান হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেছিলেন সোনাল। এখন তিনি বিচারক।