পিএসি-র চেয়ারম্যান পদে মুকুলের নিয়োগ মামলার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন রাজ্যের

259
ছবি: সংগৃহীত

কলকাতা: মুকুল রায়ের পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি (পিএসি)-র চেয়ারম্যান পদ বাতিলের দাবিতে করা মামলার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন রাজ্যের। মুকুল রায়কে পিএসি-র চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণের দাবিতে কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন বিজেপি বিধায়ক অম্বিকা রায়। কলকাতা হাইকোর্টে সেই মামলার গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ মামলাকারীর কাছে জানতে চেয়েছেন আদালত এই মামলা কেন গ্রহণ করবে সেই বিষয়ে ৪ অগাস্টের মধ্যে লিখিত জানাতে হবে। আগামী ১০ অগাস্ট ফের এই মামলার শুনানি হবে।

শুক্রবার মামলার শুনানিতে রাজ্যের তরফে অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত জানান, এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা বিধানসভার স্পিকারের। এই নিয়োগের ব্যাপারে তিনি চূড়ান্ত ক্ষমতা ভোগ করেন। এই বিষয়ে আদালতের হস্তক্ষেপ করা উচিত নয়। তিনি জানান, সংবিধানের ২১২ নম্বর ধারা অনুয়ায়ী বিধানসভায় চূড়ান্ত ক্ষমতার অধিকারী স্পিকার। আদালত স্পিকারের এই সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করতে পারে না। অন্যদিকে, মামলাকারী অম্বিকা রায়ের বক্তব্য ছিল মুকুল রায় বিজেপির টিকিটে বিধায়ক হয়েছেন। কিন্তু বিধায়ক হওয়ার পরপরই তিনি তৃণমূল কংগ্রেসে নাম লেখান। পিএসি-র চেয়ারম্যান সবসময় বিরোধী দল থেকেই মনোনীত হন। কিন্তু মুকুল রায় এখন আর বিজেপির সদস্য নন। সেই কারণেই পিএসি চেয়ারম্যান হিসেবে তাঁর নিয়োগ বাতিল করা উচিত। উল্লেখ্য, বিজেপি ৬ জন সদস্যের তালিকা পাঠালেও তাঁদের মধ্যে থেকে কাউকে চেয়ারম্যান করা হয়নি। স্পিকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন অম্বিকা রায়।

- Advertisement -