মধ্যরাতে অসহায় বৃদ্ধকে ফেলে উধাও অ্যাম্বুলেন্স, প্রশ্নের মুখে হাসপাতালের ভূমিকা

202

বারাসাত: রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর ও কোভিড হাসপাতালের অমানবিক ভূমিকা নিয়ে স্তম্ভিত রাজ্যবাসী। উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর ৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন পুরপিতা নির্মল দাস সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। ভর্তি ছিলেন সেখানকার কদম্বগাছি কোভিড হাসপাতালে। সেখানেই তার লালার পরীক্ষার রিপোর্টে করোনা নেগেটিভ আসে।

এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বয়স্ক নির্মলবাবুর বাড়িতে কোনও কিছু না জানিয়েই রাত্রি এগারোটা নাগাদ একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় অ্যাম্বুলেন্স চালক অত রাতে বয়স্ক নির্মল বাবুকে তার বাড়িতে না পৌঁছে দিয়ে বাড়ি থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে অ্যাম্বুলেন্স থেকে তাকে নামিয়ে দিয়ে চম্পট দেয় বলে অভিযোগ। নির্মলবাবু যেহেতু ভালোভাবে কথা বলা বা হেঁটে যাওয়ার মত সামর্থ ছিল না তাই সারারাত তাকে রাস্তার ধারে বসেই কাটাতে হয়েছে।

- Advertisement -

এদিন ভোরে তিনি স্থানীয়দের সহায়তায় বাড়ি ফিরে যান। আর তারপরেই বিষয়টি জনসমক্ষে আসে। স্তম্ভিত নির্মল বাবুর বাড়ির সদস্যরা এদিন হাসপাতাল সুপারকে বিষয়টি জানালে, তিনি বিষয়টি নিয়ে তদন্তের আশ্বাস দিয়েই ক্ষান্ত হন । এমনকি শাসকদলের একজন প্রাক্তন পুরপিতার সঙ্গে যদি এই ধরনের আচরণ করা হয়, তাহলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে স্বাস্থ্য দপ্তর ও কোভিড হাসপাতালগুলি কি ব্যবহার শুরু করেছে তা সহজেই অনুমেয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন অশোকনগরের বাসিন্দারা।