কাটোয়ায় প্রাচীন অষ্টভুজা শিলামূর্তি উদ্ধার

72

বর্ধমান: পুকুর সংস্কারের কাজ চলাকালীন পাঁকে উদ্ধার হল সাড়ে ৪ ফুট উচ্চতার প্রাচীন অষ্টভুজা দেবীর শিলামূর্তি। বৃহস্পতিবার বিকেলে পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া থানার বেড়াগ্রামের একটি পুকুর থেকে মূর্তিটি উদ্ধার হয়। কাটোয়া থানার পুলিশ মূর্তিটি নিজেদের হেপাজতে নিয়েছে। খবর দেওয়া হয় বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতত্ত্ব বিভাগে। মূর্তিটি চাক্ষুষ করে ইতিহাসবিদরা মনে করছেন সেটি বৌদ্ধ আমলে নির্মিত হতে পারে।

কাটোয়া বেড়াগ্রামে বসবাস দিলীপ ঘোষ, উদয় ঘোষদের। কয়েকদিন হল তাঁদের একটি পুকুর সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। গতকাল বিকেলে শ্রমিকরা পুকুরের পাঁক কেটে তুলছিলেন। সেইসময় পাঁকের সঙ্গে উঠে আসে ওই পাথরের মূর্তিটি। মূর্তিটি জলে ধুয়ে পরিষ্কার করার পর দেখা যায় অষ্টভুজা মূর্তিতে থাকা দেবীর তিন মুখে প্রকাশ পাচ্ছে তিন রূপ। প্রতিটি মুখে তিনটি করে চোখ রয়েছে। ক্রুদ্ধ ভঙ্গিমায় রয়েছে দেবীর ডান দিকের মুখ, মাঝের মুখটি শান্ত ভঙ্গিমায় আর বাম দিকের মুখাবয়ব বরাহ আদলের।

- Advertisement -

কাটোয়া নিবাসী ইতিহাস গবেষক স্বপন ঠাকুর জানান, মূর্তিটি ১২৭০ থেকে ১৩০০ বছরের প্রাচীন। মূর্তিটি বৌদ্ধ আমলের বলেই তিনি মনে করছেন। অষ্টভুজা মারিচী মূর্তি। এমন দেবীর আটটি হাতে থাকে সূচ, সুতো, অঙ্কুশ, রজ্জু, তীর, ধনুক, বজ্র এবং অশোক গাছের ডাল। এমন মূর্তিতে একটি রথের উপর দাঁড়িয়ে থাকেন দেবী। সাতটি বরাহ সেই রথ টেনে নিয়ে যায়। দেবীর রথের চাকার তলায় থাকে রাহু। এছাড়াও অন্য চার দেবী অষ্টভুজা মারিচী দেবীকে ঘিরে থাকেন। স্বপনবাবুর মতে, পাল যুগে বৌদ্ধধর্মের উত্থানের সময় এমন মারিচী মূর্তির উপাসনার চল ছিল। মূর্তিটির পুরাতাত্মিক মূল্য রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।