উদ্বেগের কঠোর চাবুক জার্মানি-ফ্রান্সে, লকডাউনের শিথিলতা বহাল ব্রিটেনে

73

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ব্যুরো: করোনার দ্বিতীয় স্ট্রেনের প্রকোপে নাভিশ্বাস এখন গোটা বিশ্বে। এদিকে, ফ্রান্স ও জার্মানির কোভিড পরিস্থিতির কারণে গোটা ইউরোপের অতিমারি সঙ্কট একপ্রকার চরমে। ইতিমধ্যেই ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়েছে জার্মানি। তারপরেও প্রদেশগুলিতে সংক্রমণ রুখতে আরও বিধিনিষেধের পরামর্শ দিয়েছেন জার্মান চান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল। অন্যদিকে, টানা কয়েক সপ্তাহ সংক্রমণের গতি নিম্নমুখী থাকার পরে আমেরিকাতেও বাড়ছে করোনা। মৃতের হার কমলেও গত সপ্তাহেই দেশে সংক্রমিত হয়েছেন ৬১ হাজারের বেশি মানুষ। মঙ্গলবার থেকে লকডাউন খানিকটা শিথিল করা হচ্ছে ব্রিটেনে। ধীরে ধীরে বিধি আলগা করে ২১ জুনের মধ্যে পারস্পরিক মেলামেশায় সব রকমের কড়াকড়ি তুলে নিতে চায় ব্রিটেন।

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল রবিবার বলেছেন, ‘আমাদের করোনা সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ রুখতে হবে। আমরা আইনত বাধ্য নিয়ম মানতে। কিন্তু এই মুহূর্তে তা হচ্ছে না।’ সোমবার নতুন করে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৯ হাজার ৮৭২ জন। এই অবস্থায় দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার আশঙ্কায় ইনটেনসিভ কেয়ারের চিকিৎসকেরা দু’সপ্তাহের জন্য কঠোর লকডাউনের ডাক দিয়েছেন।

- Advertisement -

ইউরোপজুড়ে সংক্রমণ ফের বাড়তে পারে বলে এই মাসের গোড়াতেই সতর্ক করেছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। সংস্থার ইউরোপীয় শাখার প্রধান বলেছিলেন, অতিমারি নিয়ে ‘ক্লান্তি’ মানুষের মধ্যে পারস্পরিক দূরত্ববিধি মানার অনীহা আনতে পারে। তার উপরে প্রতিষেধক এসে যাওয়ার স্বস্তিতেও অনেকে বিধি মানতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না।