পরীক্ষা বাতিল হওয়ায় আত্মঘাতী মাধ্যমিকের ছাত্রী

137

দিনহাটা: করোনা আবহে চলতি বছর মাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত ঘোষণার কিছুক্ষণ পরই আত্মঘাতী হলেন এক মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সন্ধ্যা নাগাদ। কোচবিহার জেলার দিনহাটা-১ ব্লকের দিনহাটা ভিলেজ ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত ছোট আটিয়াবাড়ি এলাকায় বাড়ি বর্ণালী বর্মন(১৬) নামে ওই ছাত্রীর। পরিবারের দাবি, পরীক্ষা না হওয়ায় মানসিকভাবে মুষড়ে পড়ে সে। এরপই আত্মহত্যা করে ওই ছাত্রী। দিনহাটা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কোচবিহার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে। পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, দিনহাটা গোপালনগর এমএসএস উচ্চবিদ্যালয়ের মাধ্যমিকের ছাত্রী ছিল বর্ণালী। এলাকায় সে অত্যন্ত মেধাবী বলেই পরিচিত ছিল। মাধ্যমিক পরীক্ষায় রাজ্যের মেধাতালিকায় স্থান পাওয়ার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিল সে। সম্প্রতি করোনা আবহে মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে কিনা তা নিয়ে উদ্বেগ ছিল তাঁর। সোমবার মাধ্যমিক পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা হতেই আরও মনমরা হয়ে যায় সে। মাকে জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি করে বর্ণালী। এরপর বিকেলে বাবা মায়ের অনুমতি নিয়ে ঘুরতে বেরোয় বর্ণালী। সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরেই সে নিজের ঘরে যায়। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ ডাকাডাকি করলেও কোনও সাড়া মেলেনি। পরে পরিবারের সদস্যরা জানালা দিয়ে মেয়ের ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। পরিবারের সদস্যদের চিৎকারে এলাকার বাসিন্দারা ছুটে গিয়ে ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন। পরে দিনহাটা থানার পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

- Advertisement -

ওই ছাত্রীর বাবা সারদা রঞ্জন বর্মন জানান, মেয়ে বারবার বলত পরীক্ষায় ভালো ফল করবে। গত কয়েক মাস ধরে মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে কিনা তা নিয়ে চিন্তিত ছিল। করোনা আবহে হাট বাজার, এমনকি নির্বাচন প্রক্রিয়া চললেও পরীক্ষা কেন হবে না? সেই প্রশ্নও বারবার তুলত। গতকাল সিদ্ধান্ত ঘোষণা হবার পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিল সে। এরপরই এই ঘটনা ঘটে।তাঁর কথায়, যারা ভালো ছাত্রী তারা সারাবছর দিনরাত পরিশ্রম করে। মনে মনে ভালো ফল করার স্বপ্ন দেখে। তাদের কথাও সরকারের ভাবা উচিত। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়া যেতেই পারত। দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত জানান, পুরো বিষয়টি বিশদে খতিয়ে দেখছে পুলিশ।