ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তারের দাবিতে সরব পড়ুয়ারা, জানুন কেন

151

রায়গঞ্জ: মিড-ডে মিল সহ একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে সাসপেন্ড এবং গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভে শামিল হলেন পড়ুয়া সহ অভিভাবকরা। বুধবার ঘটনাটি ঘটে রায়গঞ্জ থানার ভাটোল গ্রামের সেবাগ্রাম হাইস্কুলে। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ভাটোল ফাঁড়ির পুলিশ।

মিড-ডে মিল নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস লক্ষ লক্ষ টাকা তছরুপ করেছে বলে অভিযোগ। কন্যাশ্রী করিয়ে দেওয়ার নামে মেয়েদের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা করে নিয়েছেন তিনি। ওই স্কুলের শিক্ষক তথা নোডাল অফিসার আশরাফুল হক জানান, কন্যাশ্রীর টাকা পাইয়ে দেওয়ার জন্য প্রধান শিক্ষক পাঁচ হাজার টাকা করে নিয়েছে। এই বিষয়ে জানার পর তিনি নোডাল অফিসারের পদ থেকে সরে যান। জানা গিয়েছে, সম্প্রতি অভিযুক্ত ওই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শোকজ হলেও তিনি প্রভাবশালী হওয়ার জন্য তাঁর বিরুদ্ধে সাসপেন্ড সহ এফআইআর করছে না জেলা শিক্ষা দপ্তর। সেই কারণেই আন্দোলনের পথে নামতে বাধ্য হয়েছেন পড়ুয়া সহ অভিভাবকরা। বেআইনিভাবে টাকা আদায় সহ মিড ডে মিলের চাল ও স্কুলের তহবিলের টাকা নিয়ে দুর্নীতির অভিযাগে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সরব হয়ে জেলা স্কুল পরিদর্শকের দ্বারস্থ হয়েছিলেন পড়ুয়া ও অভিভাবকরা। উত্তরবঙ্গ সংবাদে এই খবর প্রকাশিত হতেই তাঁকে শোকজ করে জেলা শিক্ষা দপ্তর। শিক্ষা দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই প্রধান শিক্ষককে শোকজ করে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। জেলা স্কুল পরিদর্শক (মাধ্যমিক) নিতাই দাস জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে শোকজ করা হয়েছে। সেবাগ্রাম হাইস্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুসের বক্তব্য, শোকজের উত্তর তিনি দিয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন তিনি।

- Advertisement -