বিক্ষোভের চতুর্থদিনে বিশ্বভারতীর পড়ুয়াদের পাশে ঐশী

60

শান্তিনিকেতন: তিন ছাত্রছাত্রীকে বহিষ্কারের পর থেকেই অশান্ত বিশ্বভারতী। ধারাবাহিক আন্দোলনের পরও কর্তৃপক্ষ নমনীয় না হওয়ায় উপাচার্যের বাড়ির গেট বন্ধ করে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল ছাত্রছাত্রীরা। মঙ্গলবার অবস্থান বিক্ষোভের চতুর্থদিনে ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছেন শান্তিনিকেতনের ব্যবসায়ীদের একাংশ। বিশ্বভারতীর কর্তৃপক্ষের দাবি আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীরা তালা ঝুলিয়েছে। যদিও ছাত্রছাত্রীরা প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে জানিয়ে দিয়েছে গেটে তাঁরা ঝোলাননি। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনকে কালিমালিপ্ত করতেই এসব করছে। তাঁদের কথায়, কর্ম সংস্কৃতি ফিরিয়ে আনতেই আন্দোলন। সেই সঙ্গে ফ্যাসিস্ট উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি করেছেন ছাত্রছাত্রীরা।

অন্যদিকে, এদিন আন্দোলন মঞ্চে হাজির হন এসএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য ও জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট ইউনিয়নের সভাপতি ঐশী ঘোষ। তিনি বলেন, ‘আমরা আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীদের পাশে রয়েছি। উপাচার্যের উচিত পুত্রসম ছাত্রছাত্রীদের স্নেহের পরশ দিয়ে তাঁদের শিক্ষার মানোন্নয়ন করা। কিন্তু তিনি তা না করে লঘুপাপে ছাত্রছাত্রীদের বহিষ্কার করছেন। ছাত্রছাত্রীদের অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন। এই ফ্যাসিস্ট উপাচার্যের বিরুদ্ধে যে আন্দোলন চলছে তাতে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।’ ব্যবসায়ী সংগঠনের অভিযোগ, এই উপাচার্য দুর্নীতিগ্রস্থ। মেলার জমা দেওয়ার টাকা ফেরত না দিয়ে আত্মসাতের চেষ্টা চালাচ্ছেন।

- Advertisement -