এনবিইউতে ভর্তি নিয়ে উদ্বিগ্ন পড়ুয়ারা

শিলিগুড়ি : উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীন কলেজগুলির তৃতীয় বর্ষের ওপেন বুক পদ্ধতিতে পরীক্ষায় রেকর্ড সংখ্যক পড়ুয়া পাশ করেছেন। এমন পরিস্থিতিতে কলেজের গণ্ডি পেরোনো হাজার হাজার পড়ুয়া উচ্চশিক্ষার জন্য উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাবেন কি না, তা নিয়ে দুশ্চিন্তা দেখা দিয়েছে। ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করা পড়ুয়াদের মধ্যেও দুশ্চিন্তা দেখা দিয়েছে। কারণ, উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তরস্তরে যতগুলি আসন রয়েছে, তার চেয়ে ফার্স্ট ক্লাস পাওয়া পড়ুয়ার সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি রয়েছে।

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩০টি ডিপার্টমেন্ট রয়েছে। স্নাতকোত্তরে রেগুলারে সবমিলিয়ে আসন রয়েছে প্রায় ১,৬০০টি। কিন্তু এবছর উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীন কলেজগুলি থেকে অনার্স ও পাশ মিলিয়ে ২৫ হাজার ৮৫৭ জন পড়ুয়া পাশ করেছেন। তার মধ্যে অনার্সে পাশ করেছেন ৯ হাজার ১৮৫ জন। অনার্স ও পাশ মিলিয়ে ৩ হাজার ৯৪০ জন ফার্স্ট ক্লাস পেয়েছেন। অনার্সে ফার্স্ট ক্লাস পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৭৪ জন। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য ডঃ সুবীরেশ ভট্টাচার্য বলেন, নতুন করে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করার পরিকাঠামো নেই। গত বছর বেশ কিছু বিভাগে আসন সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। স্নাতকোত্তরস্তরে ভর্তির জন্য পড়ুয়ারা আবেদন জমা করতে শুরু করেছেন। কতগুলি আবেদন জমা পড়ছে সেইদিকে নজর রাখছি। অবস্থা কী হয়, সেই বুঝেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তাছাড়া, উত্তরবঙ্গে আরও বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। পড়ুয়ারা সেখানেও পড়ার সুযোগ পাবেন। প্রয়োজন হলে আসন বৃদ্ধির বিষয়ে আমরা ভাবনাচিন্তা করব।

- Advertisement -

করোনার জেরে এবছর পড়ুয়াদের মধ্যে জেলা অথবা রাজ্যের বাইরের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে গিয়ে পড়াশোনা করার ঝোঁক কিছুটা হলেও কম। বহু অভিভাবক ছেলেমেয়েকে বাইরে পাঠাতে চাইছেন না। আবার পড়ুয়াদের একাংশর বক্তব্য, রাজ্যের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন কলেজে ওপেন বুক পদ্ধতিতে পরীক্ষা হয়েছে। পড়ুয়ারা অনেক নম্বর পেয়েছেন। ফলে সেই বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে বাইরের পড়ুয়ারা কতটা পড়ার সুযোগ পাবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েছে। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নেতা মিঠুন বৈশ্য বলেন, যেভাবে পড়ুয়ারা পাশ করেছেন, তাতে রেগুলারে পড়াশোনার ক্ষেত্রে সকলকে জায়গা দেওয়া অসম্ভব। সেই ধরনের পরিকাঠামো বিশ্ববিদ্যালয়ে নেই। পুরোনা ভবনগুলিতে বেশ কিছু বিভাগের ক্লাস হয়। অনেক বিভাগে পড়ুয়া সংখ্যা এমনিতেই অতিরিক্ত হয়ে যাওয়ায় চাপাচাপি করে বসে ছাত্রছাত্রীরা ক্লাস করতে বাধ্য হন। আসন বৃদ্ধির জন্য আমরা মৌখিকভাবে উপাচার্যের কাছে আবেদন করেছি।

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীন কলেজগুলিতে এবছর কলা বিভাগের অনার্সে পাশের হার ৮৮.৮৪ শতাংশ। এর মধ্যে ১,৬৭৯ জন ছাত্রী, ৮২৫ জন ছাত্র ফার্স্ট ক্লাস পেয়েছেন। কলা বিভাগের পাশ কোর্সে এবছর পাশের হার ৮১.০৮ শতাংশ। অপরদিকে, বিজ্ঞান বিভাগের অনার্সে পাশের হার বেড়ে হয়েছে ৮৯.০৮ শতাংশ, যার মধ্যে ৪৫৫ জন ছাত্র ও ৪২৩ জন ছাত্রী ফার্স্ট ক্লাস পেয়েছেন। এবছর পাশ কোর্সে পাশের হার বেড়ে হয়েছে ৮৪.০৯ শতাংশ। বাণিজ্য বিভাগে অনার্সে এবছর পাশের হার ৮৬.৭৬ শতাংশ, যার মধ্যে ২০০ জন ছাত্র ও ১৯২ জন ছাত্রী ফার্স্ট ক্লাস পেয়েছেন। বাণিজ্য বিভাগের পাশ কোর্সে এবছর পাশের হার ৮২.৩০ শতাংশ।