হাত খরচের টাকা বাঁচিয়ে মাস্ক-স্যানিটাইজার বিলি পড়ুয়াদের

135

ফালাকাটা: হাত খরচের টাকা জমিয়ে করোনা মোকাবিলায় শামিল হল পাঁচ স্কুল পড়ুয়া। বুধবার ফালাকাটার পারঙ্গেরপার শিশু কল্যাণ উচ্চ বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়ারা মাইকে কোভিড সচেতনতামূলক প্রচার চালায়। প্রচারের পাশাপাশি মাস্ক, সাবান, স্যানিটাইজার, হেড ক্যাপও বিলি করা হয়। পড়ুয়াদের এই কর্মসূচিতে শামিল হন ফালাকাটা কলেজের ছাত্র প্রণব সরকার, সংশ্লিষ্ট হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রবীররায় চৌধুরী, আরেক শিক্ষক সুশান্তকুমার রায়। ছাত্রদের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেকেই।

ফালাকাটায় করোনা সংক্রামিতের সংখ্যা বাড়ছে। তারপরেও লকডাউন জারি হলেও অনেকে স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। রোজ শহর ও গ্রামের নানা প্রান্তে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ প্রশাসন। তা সত্ত্বেও সকাল ৭টা-১০টার সময় হাট বাজারে শারীরিক দূরত্ববিধি মানা হচ্ছে না। অনেকেই ঠিক মত মাস্ক পরছে না। এর জেরেই এদিন মাঠে নামতে বাধ্য হয় পড়ুয়ারা। ফালাকাটা ধূপগুড়ি মোড়ে সকালে বাজার বসে। এই বাজারের পাশেই পারঙ্গেরপার শিশু কল্যাণ হাই স্কুল। শহরের রেলওয়ে স্টেশন পাড়ার সুপ্রতীক বিশ্বাস, মুক্তিপাড়ার পরীক্ষিত বর্মন, ধূপগুড়ি মোড়ের পুনাম সূত্রধর, কলেজপাড়ার আয়ুষ মিত্র ও স্নেহা ঘোষ ওই স্কুলে দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ে। করোনার প্রথম ঢেউয়ের পর কয়েকমাস খোলা থাকলেও এখন ফের স্কুল বন্ধ। সবাই অনলাইনে ক্লাস করছে। ফোনে যোগাযোগ করেই ওরা হাত খরচের টাকা জমিয়ে করোনা মোকাবিলায় মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নেয়। এদিন সকালে সবাই মাস্ক, গ্লাভস, হেড ক্যাপ লাগিয়ে ধূপগুড়ি মোড়ের বাজারে সচেতনতামূলক প্রচার চালায়। তারপর ২০০ সার্জিক্যাল মাস্ক, ১০০টি হেড ক্যাপ, ২০ জনকে সাবান ও ২০ জনকে স্যানিটাইজার প্রদান করে পড়ুয়ারা।

- Advertisement -

পড়ুয়া সুপ্রতীক বলেন, ‘বাবা, মায়ের কাছে মাঝে মধ্যে হাত খরচের টাকা পাই। এখন স্কুল বন্ধ থাকায় হাত খরচ সেরকম হচ্ছে না। তাই সহপাঠীদের সঙ্গে আলোচনা করে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়।’ আরেক ছাত্রী স্নেহা ঘোষের বক্তব্য, ফালাকাটায় অনেকে এখনও সুরক্ষাবিধি মানছে না। তাই এদিন মাইকে সচেতনতামূলক প্রচার চালানো হয়। সকাল ১০টার মধ্যে পড়ুয়াদের এই কর্মসূচি শেষ হয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রবীররায় চৌধুরি পড়ুয়াদের এই কর্মকাণ্ডের জন্য নিজেকে গর্বিত মনে করছেন। তিনি বলেন, ‘ওরা সবাই মেধাবী। আগে থেকেই ওদের মধ্যে সামাজিক ও মানবিক মূল্যবোধ লক্ষ্য করেছি। আজকে ওদের এই কর্মসূচির জন্য গর্ব হচ্ছে। তাই ওই কর্মসূচিতে আমিও শামিল ছিলাম।’