অসুস্থতার জেরে বন্ধ পড়াশোনা, সাহায্যের আর্জি পরিবারের

103

ময়নাগুড়ি: স্কুলের গন্ডি পেরিয়ে কলেজে পদার্পণ। কিন্তু করোনার ছোবলে কলেজের স্বাদ নেওয়া সম্ভব হয়নি। দীর্ঘ সময় পর কলেজে পঠন-পাঠন শুরু হলেও কলেজে যেতে পারছে না সঙ্গীতা। দীর্ঘ তিন মাস ধরে মুখের ভেতর অজানা ঘায়ের জেরে খাওয়া-দাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে তাঁর। আর্থিক অপ্রতুলতার কারণে সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত এই কলেজ ছাত্রী। এখন প্রায় শয্যাশায়ী অবস্থায় দিন কাটছে তাঁর। মেয়ে সুস্থ হয়ে কলেজে যাক চায় বাবা-মা। সেই কারণে আর্থিক সহযোগিতার আর্জি জানিয়েছেন মা জ্যোৎস্না বাড়ই।

ময়নাগুড়ি ব্লকের হুসলুডাঙ্গা বাজার সংলগ্ন এলাকায় জ্যোৎস্নাদেবীর বাড়ি। বাজারে তাঁদের ছোট চায়ের দোকান। চা বিক্রি করে তিন ছেলে মেয়ের লেখাপড়া ও সংসার চলে। এরমধ্যে হঠাৎ বড় মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ায় অথৈ জলে পরিবারটি। জমানো সামান্য টাকা ও জিনিসপত্র ইতিমধ্যেই মেয়ের চিকিৎসার খাতে শেষ হয়ে গেছে। তারপরেও মেয়ে সুস্থ না হওয়ায় দুশ্চিন্তায় রয়েছে দুঃস্থ পরিবারটি। অপরদিকে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা না হলে মেয়েকে বাঁচানো সম্ভব হবে না বলে আশঙ্কা মায়ের।

- Advertisement -

প্রতিবেশী দীনেশ চন্দ্র রায় বলেন, ‘পরিবারটি খুবই দুঃস্থ। বাজারে চা বিক্রি করে কোনওরকমে চলে। কোনও সহৃদয় ব্যক্তি বা সংস্থা যদি মেয়েটির চিকিৎসার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তবে খুবই ভালো হয়।’