জলমগ্ন চরতোর্ষা ডাইভারসন, ফের ফালাকাটা-আলিপুরদুয়ার সড়কে যান চলাচল বন্ধ

742

ফালাকাটা: লাগাতার বৃষ্টিতে জলে ডুবে গেল চরতোর্ষা ডাইভারসন। এজন্য ফের ফালাকাটা-আলিপুরদুয়ার সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেল। সোমবার সকাল থেকেই এই সড়কে কোনও যানবাহন চলাচল করতে পারেনি। সমস্যায় পড়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। অনেক অফিস ও নিত্যযাত্রীদের এজন্য চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তবে জল কমলেই ডাইভারসন সারাই করা হবে বলে জানিয়েছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ।

২০১৭ সালের বন্যায় ভেঙে যায় ফালাকাটার চরতোর্ষা কাঠের সেতু। ফালাকাটা-সলসলাবাড়ি এই রাস্তাতেই তৈরি হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট করিডর বা চার লেনের মহাসড়ক। এজন্য ভেঙে যাওয়া সেতুর পাশে হিউম পাইপ বসিয়ে তৈরি করা হয় ডাইভারসন। তবে তিন বছর থেকেই এই ডাইভারসনের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে ফালাকাটা সহ জেলার একাংশ মানুষকে। চলতি বর্ষায় এখনও পর্যন্ত প্রায় ১৪-১৫ বার এই ডাইভারসন জলে ডুবে গিয়েছে। পাহাড়ে ভারী বৃষ্টি হলেই জলমগ্ন হয়ে পড়ে চরতোর্ষা ডাইভারসন। রবিবার রাত থেকে সোমবার দিনভর ভারী বৃষ্টি হয়। ফলে এদিন সকাল থেকে ফের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

- Advertisement -

স্থানীয় বাসিন্দা সমীর বালো বলেন, এদিন সকালে কাজের জন্য ফালাকাটায় যেতে বের হয়েছিলাম। কিন্তু ডাইভারসন জলে ডুবে থাকায় যেতে পারিনি। কালীপুরের উমা বর্মন নার্সের চাকরি করেন। রবিবার রাতে তিনি একটি নার্সিংহোমে ডিউটি করে এদিন সকালে বাড়ি ফিরতে পারছিলেন না। পরে তিনি বাধ্য হয়ে কোচবিহার জেলার ঘোকসাডাঙ্গা, পুন্ডিবাড়ি হয়ে অনেকটা ঘুরপথে বাড়িতে ফেরেন। তিনি বলেন, এই ডাইভারসনের জন্য বার বার ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। বংশীধরপুরের কৃষক সত্যেন দাস জানান, এদিন তিনি সবজি নিয়ে ফালাকাটার কিষান মান্ডিতে যেতে পারেননি। এই পরিস্থিতিতে বাসিন্দাদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

এদিকে চলতি বছরে লকডাউন ও ভারী বর্ষনের কারণে মহাসড়কের কাজেও বিঘ্ন ঘটে। জমি জটের কারণে এখনও কোথাও কোথাও রাস্তার কাজ শুরু হয়নি। এই রাস্তায় থাকা নতুন সেতুর কাজও সেভাবে এগোয়নি বলে অভিযোগ। তবে মহাসড়ক নির্মাণকারী সংস্থার আলিপুরদুয়ার জেলার প্রশাসনিক প্রধান মেহেবুব রহমান বলেন, ভারী বৃষ্টির কারণে চরতোর্ষা ডাইভারসন এদিন জলে ডুবে যায়। তবে জল কমতেই ডাইভারসন সারাই করা হবে।