‘কমরেড’ সুদর্শন রায়চৌধুরীর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ ব্রাত্য বসুর

242

ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যের প্রাক্তন উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী সুদর্শন রায়চৌধুরীর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেছেন বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। অত্যন্ত স্বাভাবিক এই ঘটনাই এখন রাজ্য রাজনীতির চর্চার বিষয়। শোকবার্তায় সুদর্শন রায়চৌধুরিকে ‘কমরেড’ শব্দে সম্বোধন করেন ব্রাত্য। ব্রাত্যর এই শব্দচয়ন নজর কেড়েছে রাজনৈতিক মহলের। রাজনৈতিক সত্ত্বার বাইরে অনেকের সঙ্গেই সুদর্শন রায়চৌধুরির ঘনিষ্ঠতা ছিল। রাজনৈতিক মহলেও সজ্জন ব্যাক্তি হিসেবে পরিচিত ছিলেন সুদর্শনবাবু। তিনি নিজেও প্রেসিডেন্সির ছাত্র ছিলেন। ব্রাত্য বসুও প্রেসিডেন্সির প্রাক্তনী। এছাড়াও নাট্যপ্রেমী হিসেবে পরিচিতি ছিল সুদর্শন রায়চৌধুরির। সুতরাং সুদর্শনবাবুর প্রতি ব্রাত্যর আলাদা আবেগ থাকা স্বাভাবিক।

শনিবার উত্তরপাড়ার একটি নার্সিংহোমে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় প্রাক্তন এই মন্ত্রীর। তাঁরই শোকবার্তায় ব্রাত্য লিখেছেন, ‘বিপিএসএফ এবং এসএফআইয়ের এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, প্রাক্তন উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী, শ্রীরামপুরের প্রাক্তন সাংসদ, সিপিআই(এম) হুগলি জেলার প্রাক্তন সম্পাদক, সিপিআই(এম) রাজ্য কমিটির সদস্য, অধ্যাপক কমরেড সুদর্শন রায়চৌধুরী আকস্মিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পরলোক গমন করেছেন। তাঁর আকস্মিক প্রয়াণে, আমি গভীর ভাবে মর্মাহত ও শোকস্তব্ধ। তাঁর বিদেহী আত্মার চিরশান্তি কামনা করি। তাঁর পরিবার-শুভানুধ্যায়ীদের জানাই গভীর সমবেদনা।’ ব্রাত্য বসুর এই পোস্টে তার পূর্বসূরীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা প্রকাশ পেয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তবে ‘কমরেড’ শব্দচয়ন সাধারণত কমিউনিস্টদের প্রতি কমিউনিস্টরাই করে থাকে। তাই শিক্ষামন্ত্রীর শোকজ্ঞাপনে এই ‘কমরেড’ শব্দই এখন হঠাৎ আলোচনায়।

- Advertisement -