স্ত্রীর মৃত্যুতে শোকাতুর স্বামী, বেছে নিলেন চরম পথ

99

আসানসোল: স্ত্রী বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এই খবর পেয়ে একইভাবে আত্মঘাতী হলেন স্বামীও। দম্পতির এইভাবে মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক অশান্তির জেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে দুজনেই আত্মঘাতী হয়েছেন বলে দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের। শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোলের জামুড়িয়া থানার শান্তিনগর এলাকায়। মৃত দম্পতির নাম অভিনয় মিত্র (২৬) ও পূর্ণিমা মিত্র (১৮)। ১ বছর ৩ মাস আগে অভিনয়ের সঙ্গে পূর্ণিমার বিয়ে হয়েছিল বলে পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে কোনও কারণে অভিনয় মিত্রর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী পূর্ণিমার ঝগড়া হয়। সেই ঝগড়ার পরে পূর্ণিমা নিজের ঘরে ঢুকে যান। এরপর অভিনয় বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। বেশ কিছুক্ষণ পর বাড়ির লোকেরা দেখতে পান যে, ঘরের মধ্যে পূর্ণিমা গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছে। সঙ্গে সঙ্গে বাড়ির লোকেরা তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয়দের সাহায্যে তড়িঘড়ি আখলপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক পরীক্ষা করে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

এদিকে, স্ত্রীর মৃত্যুর খবর বাইরে থাকা অভিনয় জানতে পারেন। তিনি বাবা রামকুমার মিত্রকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে তাড়াতাড়ি গিয়ে স্ত্রীকে চিকিৎসা করানোর কথা বলেন। বাবা শরীর খারাপের কথা বলে যেতে না চাইলেও, অভিনয় তাঁকে জোর করে পাঠান। রামকুমারবাবু জামুড়িয়া থানা মোড় এলাকায় গিয়ে ফের নিজের বাড়িতে ফিরে আসেন। তখন তিনি দেখেন, স্ত্রীর ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে পড়েছেন অভিনয়। রামকুমারবাবুর চিৎকারে আশপাশের লোকেরা সেখানে ছুটে আসেন। অভিনয়কে উদ্ধার করে আখলপুর স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। তবে সেখানে অভিনয়কেও মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। জামুড়িয়া থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করে আসানসোল জেলা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, পারিবারিক অশান্তির কারণে এই দম্পতি আত্মঘাতী হয়েছেন। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের এসিপি তথাগত পান্ডে জানান, পরিবারের তরফে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। দুটি মৃত্যুর ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।